জি.এম.মিন্টু: কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া সামগ্রী ও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ব্যক্তিদের মাঝে হুইলচেয়ার বিতরণ করা হয়েছে। ১১ অক্টোবর (মঙ্গলবার) সকালে উপজেলা পরিষদের আয়োজনে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি’র) অর্থায়নে উপজেলা পরিষদ চত্বরে ওই ক্রীড়া সামগ্রী ও হুইলচেয়ার বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী রফিকুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পলাশ কুমার মল্লিক, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা আকতার সাদেক।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কমিশনার (ভূমি) মোঃ আরিফুজ্জামান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আলমগীর হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমীন, কেশবপুর সরকারি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ এ টি এম বদরুজ্জামান, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মোঃ আলমগীর হোসেন, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সজীব সাহা, কেশবপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শুভ্র প্রকাশ দাস, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুপালী রানী, উপজেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা বিমল কুমার কুন্ডু, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি’র ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেবাশীষ দাশ, ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটি, গণমাধ্যম ও মানবাধিকার সংস্থা কেশবপুর উপজেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক শামীম আখতার মুকুল, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মশিউর রহমান, মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির পলাশ, বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন, পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসীম উদ্দীন সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকবৃন্দ। উল্লেখ্য, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি’র) অর্থায়নে উপজেলার ৪৪ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের খেলাধুলার জন্য ক্রীড়া সামগ্রী প্রদান এবং ২০ জন প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইলচেয়ার বিতরণ করা হয়।

Previous articleপীরগাছা নটাবাড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শ্বশুর-জামাই নিয়োগ বানিজ্যে
Next articleভারতে আটকে পড়া জেলেদের পরিবারে হতাশা-অনিশ্চয়তা, মানবেতর জীবনযাপন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।