সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার সলঙ্গায় কুমার সম্প্রদায়ের প্রায় পনেরো পরিবার বসবাস করছেন । এরা আদি বংশীয় পেশায় মাটির বাসন সামগ্রী তৈরী করেন । এখানকার মাটির তৈরী টবের চাহিদা বেড়েছে।

প্রতিদিন শত শত টব তৈরী ও বিক্রি হয়৷ মাটির টব বংশীয় পেশা টিকিয়ে রেখেছে। সলঙ্গা বাজারের ধামাইলকান্দি সড়কের ধারে কুমারপাড়া। এখানে কুমার সম্প্রদায়ের প্রায় পনেরো পরিবার নিজস্ব বসতভিটেয় বসবাস করছেন। এক সময় কুমারপাড়ায় মাটির সব ধরণের গৃহস্থালী সামগ্রী তৈরী করা হতো। আর চাহিদায় তা বিক্রি হতো। এখন মাটির তৈরী হাড়ি পাতিল তেমন চলে না। তবে সলঙ্গার কুমারদের তৈরী টবের চাহিদা এখন বেড়েছে। বেশ কটি কুমার পরিবার প্রতিদিন শত শত টব তৈরী করছেন। প্রতিবেদককে কুমার সম্প্রদায়ের বিপ্লব পাল বলেন তারা এখন টব আর কুয়ার চাক তৈরী করেন। এর মধ্যে টব বেশী চলছে।

বিভিন্ন এলাকার নার্সারির মালিকেরা শত শত টব কেনেন। তার কথায় মাটির টব তাদের বংশীয় পেশা টিকিয়ে রেখেছে বলা চলে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে সড়কের ধারে বিশাল উঠোন আঙ্গিনায় কয়েকশ টব রোদে শুকাতে দেওয়া হয়েছে। আরোও তৈরী করা হচ্ছে। জানানো হয় আট জন নারী চুক্তিতে মাটির টব তৈরী করছেন। এদের একজন বলেন একটি টব তৈরী ও শুকানোর কাজে তারা দু’টাকা চুক্তি করে নিয়েছেন।

প্রতিবেদককে কুমার সম্প্রদায়ের ক’জন আরো বলেন টব ও কুয়ার চাক তৈরীতে আগের চেয়ে খরচ বেড়েছে। মাটির তৈরী সামগ্রীর হাড়ি পাতিল তেমন চলে না।

Previous articleবাউফলে অর্ধশাতাধিক স্পটে বিক্রি হচ্ছে মাদক
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে স্মার্ট কার্ড ও সনদ বিতরণ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।