বুধবার, এপ্রিল ২৪, ২০২৪
Homeসারাবাংলাহাওরাঞ্চল থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ঘুঘু পাখি

হাওরাঞ্চল থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ঘুঘু পাখি

আহম্মদ কবির: হাওরের ঘেরা জনপথ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার হাওরাঞ্চলে এক সময় প্রচুর ঘুঘু পাখি দেখা যেত।আবার কেউ শকেরবসে খাঁচায় করে বাসাতেও পুষত।হাওরাঞ্চলের এক সময়ের চির-চেনা ঘুঘু পাখি এখন হারিয়ে যেতে বসেছে। অথচ একসময় হাওরে হাওরে কৃষকের মাঠের ধান গড়ে তুলত ঘুঘু পাখির কুহ কুহ ডাকের আনন্দে।তখন ঘুঘুর ডাকে মুখরিত হতো হাওরের পরিবেশ। ঝোপ-জঙ্গল খোলা মাঠ বা আশপাশের বড় বড় গাছ আছে এমন কৃষি জমিতেও এদের দেখা মিলত।

সম্প্রতি হাওর এলাকা বিভিন্ন বনাঞ্চল ঘুরে দেখা গেল,হাওরাঞ্চলে আগের মতো চির-চেনা এই ঘুঘু পাখিটি তেমন দেখা যায় না। দুই একটা হাওরে বনজঙ্গল ও গ্রামাঞ্চলে দেখা গেলেও তার সংখ্যা খুবই কম।

টাঙ্গুয়ার হাওর পাড়ের জয়পুর গ্রামের বাসিন্দা প্রবীণ মুরব্বী কপিলনুর মিয়া জানান আগে আমাদের এই হাওর জনপথে বনজঙ্গল ও গাছে গাছে আগে প্রচুর দেখা যেতো এখন আর তেমনটা পাওয়া যায় না।আমাদের বনজঙ্গল ও গাছগাছালিতে আগে সবুজ নীল ও খয়েরি বর্নের ঘুঘুর বিচরণ ছিল।পাখি গুলো সাধারণত জোড়ায় বা ছোট দলে বিচরণ করে।কৃষি জমি ঘাসপূর্ণ মাঠ,ঝোপ বনের প্রান্ত বা গ্রামে আশপাশে হেঁটে হেঁটে খাবার সংগ্রহ করে এরা।ঘাস ও আগাছার বিচি,শস্যদানা, গাছের কুঁড়ি ও কচি পাতা খায়।মুলত ধানই ছিল ঘুঘুর প্রধান খাদ্য।

পাখি বিশেষজ্ঞদের মতে ফশলি জমিতে মাত্রাতিরিক্ত রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার ও শিকারিদের অত্যাচারের ফলে যেমন ঘুঘুর প্রজনন কমে গেছে।তেমনি খাদ্যে বিষক্রিয়া ও শিকারিদের কারণে মারা যেতো ঘুঘু পাখি।

হাওর পাড়ের বাসিন্দা সাংবাদিক শামছুল আলম আখঞ্জী টুটু বলেন ঘুঘু পাখির সুনির্দিষ্ট আবাস্থল ও প্রজননের উপযুক্ত পরিবেশ না থাকার কারনে এ প্রজাতির পাখি দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে।উনি বলেন ঘুঘু অত্যন্ত ভিতু ও লাজুক প্রকৃতির পাখি।সাধারণত বছরে এক জোড়া ডিম পাড়ে।বিস্তীর্ণ বনাঞ্চল, গাছের ডালে, এরা বাসা করে ডিম থেকে বাচ্চা দিত।এখন এই পাখিটি মাঝেমধ্যে দুই একটা চোখে পড়লেও আগের মতো নেই।শিকারিদের কবলে ও ঝোপ-জঙ্গল কমে যাওয়ায় বর্তমানে এদের সংখ্যাও কমে যাচ্ছে। প্রায় বিপন্ন হয়ে যাচ্ছে এই সুন্দর পাখিটি।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments