বুধবার, এপ্রিল ২৪, ২০২৪
Homeসারাবাংলারাজাপুরে দুই মন গরুর মাংস কেরোসিন মিশিয়ে মাটি চাঁপা

রাজাপুরে দুই মন গরুর মাংস কেরোসিন মিশিয়ে মাটি চাঁপা

রেজাউল ইসলাম পলাশ: ঝালকাঠির রাজাপুরে গরুর ভালো মাংসের সাথে পঁচা মাংস মিশিয়ে বিক্রয়ের অভিয়োগ উঠেছে স্থানীয় আল-আমিন নামে এক মাংস বিক্রেতার বিরুদ্ধে। রবিবার (২৩ এপ্রিল) ভোরে উপজেলার গালুয়া ইউনিয়নের পুটিয়াখালী মীরের হাট বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পরে ঐ মাংস কেরোসিন মিশিয়ে মাটি চাঁপা দেয়া হয়।

স্থানীয়রা জানান, মাংস ব্যবসায়ী আল আমিন ঈদের দিন তিনটি গরু জবাই করে। মাংসের দাম বেশী হওয়ায় বিত্রেুতা পুরো মাংস বিক্রি করতে না পারায় অ- বিক্রিত মাংস ফ্রিজে রেখে দেয়। পরের দিন একই বাজারের ব্যাবসায়ী মোঃ আসাদ তালুকদার তার বাড়ীতে একটি বিবাহ অনুষ্ঠানের জন্য ৮০ কেজি মাংস বিক্রি করে। বিক্রেতা ঐ মাংসের সাথে ৭-৮ কেজি ফ্রিজে থাকা মাংসের মিলিয়ে দেয়। কিছুক্ষন পরে ক্রেতা ঐ মাংস ফেরৎ নিয়ে আসে এবং স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ আমিনুল ইসলাম ও বাজার কমিটির সেত্রেুটারী মোঃ আল আমিন মীর মাংস বিক্রেতাকে ডেকে কথা বলে। পরে উপস্থিত সকলের সিদ্বান্ত অনুযায়ী ক্রেতাকে পুরো মাংসের টাকা ফেরৎ দেয় বিক্রেতা আল আমিন। সেই সাথে ঐ মাংস কেরোসিন মিশিয়ে মাটি চাঁপা দেয়া হয়।

মাংসের ক্রেতা মোঃ আসাদ তালুকদার জানান, আমার বাড়ীতে একটি বিবাহ অনুষ্ঠানের জন্য রবিবার স্থানীয় মাংস বিক্রেতা আল আমিনের কাছ থেকে ৮০ কেজি মাংস ক্রয় করি। সেই মাংসের ভিতরে ৭-৮ কেজি ফ্রিজের মাংস ছিলো যাতে একটু সমস্যা ছিলো। পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য সহ বাজার কমিটির মাধ্যমে আল আমিন কে বিষয়টি জানানোর পরে সে পুরো মাংস ফেরৎ নেয় এবং আমার টাকা ফেরৎ দেয়। এ বিষয়ে আমার কোনো অভিযোগ নেই। মাংস বিক্রেতা আল-আমিন জানায়, আাগের দিনের সব মাংস বিক্রয় করতে না পেরে কিছু ফ্রিজে রাখি এতে একটু গ্যাস হয়। পরের দিন ভাল মাংসের সাথে ৭-৮ কেজি মাংস মিশিয়ে বিক্রেতা আসাদ তালুকদারকে দিয়েছিলাম। ক্রেতা অভিযোগ করলে বাজার কমিটি ও স্থানীয় ইউপি সদস্য সহ স্থানীয়দের সিদ্ধান্তে মাংস ফেরৎ নিয়ে ক্রেতার টাকা তাকে বুঝিয়ে দেই। পরে স্থানীয় মহল্লাদার, ইউপি সদস্য ও বাজার কমিটির সামনে ফেরৎ আসা মাংস কেরোসিন মিশিয়ে মাটি চাঁপা দেয়া হয়। স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, ফ্রিজের মাংস বিক্রয় করেছিলো আল আমিন।

এ বিষয়ে ক্রেতা আসাদ তালুকদার অভিযোগ করলে পুরো টাকা ফেরৎ দেয় বিক্রেতা আল আমিন। বাজারে গরু জবাই করলে বাজারের মসজিদের ইমামের মাধ্যমে গরু জবাই করতে হবে। ফ্রিজে রাখা গরু বিক্রয় করা যাবেনা। আমি ও বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক আল-আমিন মিলে এ সিদ্ধান্ত নিয়ে এবং ঐ দুই বস্তা মাংস কেরোসিন মিশিয়ে মাটি চাঁপা দেয়া হয়েছে। মীরের হাট বাজার কমিটির সেত্রুটারি সৈয়দ আল আমিন এর কাছে জানতে চাইলে তিনিও একই কথা বলেন।

রাজাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পুলক চন্দ্র রায় বলেন, এ বিষয় কোন অভিযোগ আসেনি।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments