শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০২৪
Homeসারাবাংলাগোপালগঞ্জের গোবরায় মাইকিং করে মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারন পরিবারের উপর হামলা, লুটপাট

গোপালগঞ্জের গোবরায় মাইকিং করে মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারন পরিবারের উপর হামলা, লুটপাট

মোঃ শিহাব উদ্দিনঃ হামলা ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রাত নয় টার সময় গোপালগঞ্জ জেলার সদর উপজেলা গোবরা ইউনিয়নে ভাটিয়াপাড়া বাজার সংলগ্ন এলাকায়। ভাটিয়াপাড়া এলাকাবাসীর চরম নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে।
গোবরা ইউনিয়ন পরিষদের ঘটে যাওয়া নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নির্বাচনে পরাজিত গোবরা ৭নং ওয়ার্ড এর মেম্বার  জানে আলম মোল্লা সহ তার সহযোগীদের হামলায় ভাটিয়াপাড়া এলাকার কয়েকটি বাড়ি ভাংচুর সহ লুটপাট সংগঠিত করে। হামলায় বাড়িতে থাকা মহিলারার রেহাই পায় নাই সন্ত্রাসীদের হাত থেকে। সন্ত্রাসীদের তান্ডবে বাড়িছাড়া এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মুন্সীর  পরিবারের সদস্যরা ও মুন্সীর মৃতঃ আলাউদ্দিনে পরিবার এর সদস্যরা।
সরেজমিনে গেলে দেখাযায়, ভাটিয়াপাড়া এলাকার বাজার সংলগ্ন বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরু মুন্সী ও শিশির মুন্সীর বাড়িঘর ভাঙ্গা-চোরা অবস্থায় পড়ে আছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ভাংচুর করেছে জানে আলম মোল্লা ও তার সহযোগী চরগোবার এলাকার কামাল শেখের ছেলে রবি শেখ, বদিয়ার শেখের ছেলে মাহিন,  সিরাজ মোল্লার ছেলে  সিমির মোল্লা, নুহু শেখের ছেলে কাদের শেখ সহ আরো অনেকে। বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম মুন্সী এর বড়ি সম্পূর্ন ফাঁকা পড়ে আছে আসে-পাশের বাড়ির লোকজনদের জিঞ্জাসা করলে জানা যায়, বড়ির সকল লোকজন জানে আলম ও তার লোকজনের অত্যাচারে পলিয়ে বেড়াচ্ছে।
ভুক্তভোগী মৃত মুন্সী আলাউদ্দিন এর বৃদ্ধা স্ত্রী বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর থেকেই ওরা আমাদের উপর বারবার হামলা ও মারধর করছে। আমাদের সন্তানদের যেখানে পাচ্ছে সেখানেই ছলে-ছুতে গোন্ডগোল করছে। আমাদের অপরাধ আমরা অন্ন প্রার্থীর নির্বাচন করেছি। ঐ দিন ওরা প্রথমে আমার ভাসুরের ছেলে সাজেদুলকে মোল্লার হাট টোলে সামনে মারধর করে। তারপর ওরা আবার সন্ধ্যার পরে মসজিদের মাইকিং করে দুই-তিন শত লোক জানে আলমের নেতৃত্বে আমাদের উপর হামলা করে আমাদের বাড়িঘর ভাংচুর করে ওরা আমার বাড়ির বৌদের মারধর করেছে। আমি সরকারের কাছে এর প্রকৃত বিচার চাই।
এ ব্যপারে বীর মুক্তিযোদ্ধ মুন্সী নুরুল ইসলাম বলেন, গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পরাজিত মেম্বার প্রার্থী মোঃ জানে আলম নির্বাচনের পর থেকে আমার পরিবার ও সমগ্র গ্রামের উপর প্রচন্ড অত্যাচার চালিয়ে যাচ্ছে। জানে আলমের সাথে জড়িত হয়েছে পিচ কমিটির সদস্য লেয়াকত হোসেন মোল্লার ছেলে সাবেক চেয়ারম্যান ফয়সাল কবির কদর, পিচ কমিটির আরেক সদস্য বেলায়েত হোসেন মোল্লার ছেলে মেহেরাব হোসেন মোল্লা, হাসান মাহামুদ মোল্লা সহ আরো অনেকে। এরা সকলে একত্রিত হয়ে আমার উপর হামলা করেছে আমার বাড়ি-ঘর ভিাংচুর করেছে, ওদের ভয়ে আমার পরিবারের লোকজন পালিয়ে বেড়াচ্ছে।এ ব্যপারে আমি স্থানীয় বিশিষ্ঠ জনেদের বললে, ব্যপারটা সমাধানের জন্য গোবরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ সফিকুর রহমান চৌধুরী টুটুল, সাবেক চেয়ারম্যান আরিফুজ্জামান টুটুল, সাবেক মেয়র রেজাউল হক সিকদার রাজু একত্রিত হয়ে গ্রামের সকলকে ডাক দেয়। জানে আলম মোল্লা ও তার দলবলেরা সালিশি অমান্য করে এখনও আমাদের উপর আত্যাচার করছে।এ ব্যপারে গোপালগঞ্জ মডেল থানায় একটি আভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আমি এই দেশদ্রহীদের হাত থেকে মুক্তি চাই। বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করছি এই সকল দেশদ্রহীদের আইনের আওাতায় এনে বিচারের ব্যবস্থা করা হোক।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গোন্ডগোলের কয়েক ঘন্টা আগেই গোপালগঞ্জ সদর থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসে সরেজমিন তদন্ত করে যান ঘটনার দিন দুপুরে। পুলিশ চলে যাওয়ার পরপর দূবৃত্তরা সন্ধ্যায় মাইকিং করে হামলা করে এই নিরিহ মুক্তিযোদ্ধা ও সাধা্রন পরিবারের উপর।গোবরা এলাকাবাসী হতাশ হয়ে পড়েছে চলমান এই সকল ঘটনা দেখে। মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ও সাধারন মানুষ  চরম নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে বলে জানায় ইউনিয়নবাসী।
ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মরর্তা মোঃ আনিচুর রহমানের কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, হামলা কারীদের একজনকে আমরা গ্রেফতার করেছি। এলাকাবাসীর ক্ষোভ পুলিশ ভটিয়াপাড়া থেকে ফিরে আশার কয়েকঘন্টা পরেই হামলা হয় এ ব্যপারে জানতে চাইলে ওসি মোঃ আনিচুর রহমান বলেন, আমি ঘোনাপাড়া গিয়েছিলাম ওখান থেকে ভাটিয়া পাড়া এলাকায় গিয়েছিলাম, তখনতো কোন গোন্ডগোল ছিল না।
আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerkagoj.com.bd/
Ajker Bangladesh Online Newspaper, We serve complete truth to our readers, Our hands are not obstructed, we can say & open our eyes. County news, Breaking news, National news, bangladeshi news, International news & reporting. 24 hours update.
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments