কেন্দুয়ায় ৩য় শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ

সদরুল আইন: পাপিয়া কেলেঙ্কারির পর আওয়ামী লীগের টনক নড়েছে। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যারাই পাপিয়ার মত দুস্কর্ম করছেন, তাদেরকে আইনের আওতায় আনার কঠোর নির্দেশনা দিয়েছেন।

জানা গেছে যে, গোয়েন্দারা আরো ১১ পাপিয়ার সন্ধান পেয়েছে। এরা গোয়েন্দা নজরদারিতে রয়েছে।

এদের মধ্যে ৬জন হলেন কেন্দ্রীয় নেতা, যাদের কাজ হলো টেন্ডারবাজি, নিয়োগ বাণিজ্য, বদলি বাণিজ্য বা বিভিন্ন ধরণের সুযোগ সুবিধা পাওয়ার জন্য কাজ বাগিয়ে নেওয়া।

এই ছয়জনই নিয়মিত সচিবালয়ে যান এবং বিভিন্ন তদবিরের সঙ্গে জড়িত থাকেন। এদের সচিবালয়ের পাস বাতিল করা হচ্ছে খুব শিঘ্রই।

আর বাকি ৫জন স্থানীয় পর্যায়ের যুব মহিলা লীগের নেতা। তারাও এলাকায় দাপট দেখান। মন্ত্রী, এমপিদের সঙ্গে ছবি তুলে তা সামাজিক মাধ্যমে দিয়ে নিজেদের ক্ষমতা জাহির করার চেষ্টা করেন।

স্থানীয় টেন্ডারবাজিতে রয়েছে তাদের ব্যাপক ভূমিকা।

এই ১১জনই গোয়েন্দা নজরদারিতে আছে। খুব শিঘ্রই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানা গেছে।