সহজ লক্ষ্যের বলি হচ্ছে শিশুরা

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: করোনাকালে দেশে হত্যা-ধর্ষণের শিকারদের অন্তত ৫৬ ভাগ শিশু। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বড়দের বিবাদের বলি হচ্ছে কোমলমতি এসব শিশু, হয়ে উঠছে প্রতিপক্ষকে হারানোর হাতিয়ার। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনায় আর্থিক অনিশ্চয়তায় শিশুর প্রতি সহিংসতা আরও বেড়েছে।

স্বজন হারানোর বেদনা মর্মভেদী। তবে অপমৃত্যুর আহাজারি আরও ভারী। আর সেই হারানো স্বজন যদি হয় ছোট্ট সোনামনি তাহলে যেন সান্ত্বনার কোনো সুযোগই যেন থাকে না।

বাস্তবতা বলছে বারবার বড়দের প্রতিহিংসার বলি হতে হচ্ছে অসহায় শিশুদের। গেল ছয় মাসে দেশে হত্যা ও ধর্ষণের শিকারদের অর্ধেকের বেশি শিশু। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই রেষারেষি বা বিবাদের জেরে সহজ লক্ষ্য হয়ে উঠছে তারা।

সমাজবিজ্ঞানীরা বলছেন, করোনাকালে আর্থিক অনিশ্চয়তা ও জনবিচ্ছিন্নতায় বেড়েছে সামাজিক অপরাধের মাত্রা। সেক্ষেত্রে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে হাতিয়ার হচ্ছে আত্মরক্ষায় অপারগ শিশুরা।

এ বিষয়ে সমাজবিজ্ঞানী তৌহিদুল আলম বলেন, যেকোনো সংকটের সময় মানুষের বেঁচে থাকা কেন্দ্রিক ভাবনাগুলোয় সংকট তৈরি হয়। তখন কিন্তু সমাজে নানা ধরনের নৈরাজ্য কিংবা মারামারি ও হতাহতের ঘটনাগুলো ঘটছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সামাজিক নিরাপত্তা বলয় বাড়ানোর পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক কাউন্সিলিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। সেই সঙ্গে নিশ্চিত করতে হবে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি।

এছাড়া পারিবারিক শিক্ষা ও সতর্কতাও জরুরি বলে মনে করেন তারা।