কাগজ ডেস্ক: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, শুধুমাত্র ধর্মীয় কারণে কোনো সম্প্রদায়ের মানুষকে ছোট করে দেখা অমার্জনীয় অপরাধ। পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী ফাইযাজুল হাসান চোহানের হিন্দুদের প্রতি বিদ্বেষমূলক মন্তব্যের জেরে এ কথা বলেন তিনি।
‘হিন্দুরা গো-মূত্র খাওয়া জাতি’ পাঞ্জাব প্রদেশের তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী ফাইয়াজুল হাসান চোহানের এমন মন্তব্যে সমালোচনা শুরু হয় খোদ পাকিস্তানেই। সংখ্যালঘুদের ব্যাপারে অশালীন মন্তব্য করায় প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও এ বিষয়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের উপদেষ্টা নাইমুল হক এক টুইটবার্তায় জানিয়েছেন, সংখ্যালঘুদের ব্যাপারে অপমানজনক বক্তব্যের কারণে ফাইয়াজুল হাসান চোহানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ওসমান বাযদারের সঙ্গে আলোচনা করে পাঞ্জাব প্রদেশের তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী ফাইয়াজুল হাসান চোহানের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেয়া হবে।

অশালীন মন্তব্যের জেরে ফাইয়াজুল হাসান চোহানের পদত্যাগ চেয়েছেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ওসমান বাযদার। এ সংক্রান্ত একটি চিঠি অনুমোদনের জন্য প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সাই মিললে পাঞ্জাব প্রদেশের তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রীর পদ ছাড়তে হবে ফাইয়াজুল হাসান চোহানের।
পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী আসাদ ওমর এবং মানবাধিকার বিষয়ক মন্ত্রী শিরীন মিজারী ও বিষয়টির কঠিন নিন্দা জানিয়েছেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের মুখপাত্র ডা. ফায়সাল বলেছেন, পাকিস্তানি পতাকায় সাদা রঙ সংখ্যালঘুদের প্রতিনিধিত্ব করে, সবুজ রঙ নিয়ে আমাদের যেমন গর্ব ঠিক সাদা রঙ নিয়েও আমরা এতটাই গর্ব করি ।
এদিকে ব্যাপক তোপের মুখে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন পাঞ্জাব প্রদেশের তথ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রী ফাইয়াজুল হাসান চোহান। তিনি বলেন, আমার বক্তব্যে সংখ্যালঘু হিন্দু ভাইয়েরা যদি কষ্ট পেয়ে থাকেন তাহলে আমি ক্ষমা প্রার্থনা করছি। আসলে আমি হিন্দু ধর্মকে কটাক্ষ করিনি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেই আমি টার্গেট করে বক্তব্য দিয়েছি।