বাংলাদেশ ডেস্ক: বিতর্কিত সংশোধিত কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে পূর্বঘোষণা অনুযায়ী ভারতজুড়ে জাতীয় ও রাজ্য মহাসড়কে নতুন করে অবরোধে নেমেছেন কৃষকরা। স্থানীয় সময় (৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২টা থেকে শুরু হওয়া অবরোধ বিকেল ৩টা পর্যন্ত চলবে। তবে অ্যাম্বুলেন্স ও স্কুল বাসের মতো জরুরি ও প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলো অবরোধের আওতায় থাকছে না।

কর্মসূচিকে ঘিরে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে দিল্লির উপকণ্ঠে ৫০ হাজারের বেশি নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করেছে প্রশাসন। সেই সঙ্গে অনেক জলকামান আনা হয়েছে। এ অবস্থায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে দু’পক্ষের মধ্যে।

কৃষক নেতাদের পাশাপাশি এই কর্মসূচি ঘিরে মোতায়েন রয়েছে দিল্লি পুলিশ। আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে দিল্লিতে ১২টি মেট্রো স্টেশনে জরুরি সতর্কতা জারি করা হয়েছে। দিল্লি পুলিশের প্রায় ৫০ হাজার কর্মীর পাশাপাশি থাকছে আধাসামরিক বাহিনীও। গাজিপুর সীমানায় ইতিমধ্যেই কাঁটাতারের বেড়া, কংক্রিটের ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে। দিল্লি-হরিয়ানা সীমানা তথা দিল্লি-এনসিআর এলাকায় পুলিশকর্মীদেরও মোতায়েন করা হয়েছে। সতর্ক দৃষ্টি রয়েছে লালকেল্লাতেও।

গাড়ির চাকা চলবে না এমন কর্মসূচি শান্তিপূর্ণ করাই আন্দোলনকারীদের লক্ষ্য, জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে কিসান মোর্চা। উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড এবং রাজধানী দিল্লি ও তার সংলগ্ন এলাকাগুলোতে নতুন কর্মসূচির বাইরে থাকবে জানিয়েছে আন্দোলনকারীরা। যদিও দিল্লিমুখী যেসব রাস্তায় মাস দুয়েক ধরে অবরোধ চলছে, সেগুলি ছাড়া বাকি রাস্তা খোলা থাকবে।

কী কারণে দিল্লির রাস্তা অবরোধ করা হচ্ছে না, তা জানিয়েছেন ভারতীয় কিসান ইউনিয়নের সভাপতি রাকেশ টিকায়েত। তিনি বলেন, ‘দিল্লিতে আন্দোলনের জায়গায় ইতিমধ্যেই অবরোধ রয়েছে। ফলে সেখানে নতুন করে এই কর্মসূচি পালন করার প্রয়োজন নেই। পাশাপাশি আলোচনার জন্য যে কোনও সময় দিল্লি থেকে ডাক আসতে পারে। তাই রাজধানীর রাস্তা খোলা রাখা হবে।’

নতুন করে এই কর্মসূচিতে ষড়যন্ত্রের আভাস পাচ্ছে সরকার। আন্দোলনের নেতাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করছে কেন্দ্র।

Previous articleশিক্ষিকাকে বিয়ে করলেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা
Next articleবিএনপি-জামায়াত পারেনি, আল-জাজিরাও পারবে না: পরিকল্পনামন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।