(মহুয়া বাবর একাধারে কবি, গীতিকার, চিত্রকর এবং কণ্ঠশিল্পী। তাঁর দুটো গ্রন্থ এবং একটি অডিও এলবাম প্রকাশিত হয়েছে। বেশকিছু মিউজিক ভিডিও তাঁর নিজের ইউটিউব চ্যানেলে আছে। এখন আসছে তাঁর লেখা গীতিকবিতা নিয়ে একটি বই।)

কবিতা – ১ : গহীনের নীরবতা

অভিমান জমে জমে নদী আজ পাথর
বৃষ্টি আসাটা কেবলই নামান্তর
হিজলের বনে আর যায় না দেখা ময়ূরের নাচ
পাখিরা কবেই হারিয়েছে নীড়
আকাশ যখন অভিযোগ করে
মেঘের কাছে থাকে না কোনো উত্তর

চোখ বুজে গান শোনার দিন গেছে উবে
সাফল্যের গল্প খুব একটা যায় না শোনা
যার সুবাতাস ভেসে বেড়াতো পশ্চিম থেকে পূবে
বাতাসের তরঙ্গেও ভেসে আসে না সেই ভাটিয়ালি সুর
আসে কেবল অপার্থিবতার অসুর

বকুলের গন্ধ হাতে বাউল কী সেই গহীনের সুর বাঁধে
মগ্নতা নিয়ে সাধক কী আগের মতোই সাধে
প্রজাপতির পাখা যদি পুড়ে যায়
তাতে কার কী এমন এসে যায়
কারখানার আগুন প্রতিনিয়ত জ্বলছে দিগ্বিদিক
সবার হ্নদয়ে প্রেম থাকলেও কোথাও আছে কী দেশপ্রেমিক!

কবিতা – ২ : বর্ষবরণ

শুভ বাংলা নববর্ষ! তুমি ভালো আছো তো মা
তোমায় ঘিরে আমার যত বাঙালীয়ানা
সুখ আর দুঃখের মাঝে তুমিই সম্ভাবনা
তুমি আমার আদর্শ সেকথা তুমি জানো তো মা!

মনে পড়ে মাঠের পরে মাঠ পেরিয়ে বড় দীঘির জলে
নিজের ছায়া দেখতে গিয়ে দেখি রাঙা সূর্য দোলে
শাপলা ফুল আর লতা পাতা টেনে এনেছি যতো
তার চেয়ে মিষ্টি পানি ফল আরো বেশি জড়ো হতো

গাঁয়ের সেই আঁকাবাঁকা পথে হারিয়ে গেছি বনে
ভাবতে গেলে চঞ্চল হয়ে সেই স্মৃতি আঁকি মনে
সোঁদা মাটির গন্ধ আজো আমায় পাগল করে
অচেনা সেই জংলি ফুলও খুব যে কাছে টানে

আমাদের স্বপ্ন গুলো পাল্টে গেছে কতো
তাই বলে তুমি রাগ করো না মাগো
হারানো দিনের অনেক কিছু ফিরে কি আর পাবো
তাই পুরোনোকে ধুয়ে মুছে করছি মনের মতো

তোমার কোলে জন্ম নিয়ে হয়েছি অনন্য
মরনেও ঠাঁই যদি পাই তবেই হবো ধন্য
তোমার ভাষায় কথা বলি তোমায় ভালবাসি
তোমার তরে যেনো দিতে পারি জীবন
তোমার রঙে সাজিয়েছি নতুন বর্ষ বরণ।

Previous articleঅক্সিজেন নিয়ে চালকের মিথ্যাচারে চোখের সামনে বাবার মৃত্যু, প্রতিবাদ করায় ছেলেকে ছুরিকাঘাত
Next articleচলচ্চিত্রকার আলমগীর কবির প্রসঙ্গে – রফিক সুলায়মান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।