বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঈদের আগে সর্বাত্মক লকডাউনের মধ্যেই রোববার (২৫ এপ্রিল) খুললো দোকানপাট-শপিংমল। হুড়মুড়িয়ে আসছেন ক্রেতারা। স্বাস্থ্যবিধি মানা আর না মানার দ্বন্দ্বে ক্রেতা-বিক্রেতা। নেই মুভমেন্ট পাসের কোনো তোয়াক্কা। এদিকে শর্ত মেনে সুরক্ষার ব্যবস্থা না নিলে দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ মালিক সমিতির।

বেলা বাড়তে বাড়তেই কানায় কানায় পূর্ণ রাজধানীর নিউমার্কেটের ভেতর ও বাইরের অংশ। সকাল ১০টায় মার্কেট আর শপিংমল খোলার কথা কিন্তু তার আগে থেকেই ভিড় লেগে যায় দোকান মালিক কর্মচারীদের। দিনের শুরুতেই স্বাস্থ্যবিধি তোয়াক্কাহীন। চোখে পড়ে অকেজো জীবাণুনাশক টানেল ও দূরত্ব শূন্যের কোঠায়।

সকালে ধূলাবালি ঝেড়ে পসরা সাজিয়ে বসতে বসতে দুপুর। সময় গড়াতেই চেহারা পাল্টে যেতে থাকে বাজারের। তবে গত বছর জীবাণুনাশক টানেল ছাড়াও কিছু স্বাস্থ্যবিধি মার্কেট কর্তৃপক্ষ নিলেও এবার তার পুরোপুরি অনুপস্থিত রয়েছে।

বেলা বাড়তেই কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মানার সর্বোচ্চ শর্ত হুমড়ি খেয়ে পড়ে স্বাস্থ্যবিধি মানা আর মানানোয় ক্রেতা বিক্রেতাদের মুখোমুখি দোষারোপে।

এ ছাড়া লকডাউনের সময়টিতে মার্কেট শপিংমলে যেতে মুভমেন্ট পাস নেয়ার কথা থাকলেও সবার কাছে যেন অপ্রয়োজনীয় বিধি বলেই জানা গেছে।

এর আগে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলালউদ্দিন জানান, স্বাস্থ্যবিধি মানতে না পারলে দোকান বন্ধ রাখতে হবে।

তবে মার্কেট ও শপিংমলের কারণে করোনা সংক্রমণ বাড়ার যে শঙ্কা তা ক্রেতা বিক্রেতা উভয়ের সচেতনতার ওপরই নির্ভর করছে বলে মনে করে মালিক সমিতি।

Previous articleলক্ষ্মীপুরে খাল থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার
Next articleহেফাজতের তাণ্ডব, ফুটেজ দেখেই গ্রেফতার হচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।