বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ভবিষ্যতে সঙ্কট এড়াতেই আইএমএফের কাছে সরকার অর্থ চেয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক। তিনি জানান, বাংলাদেশের সক্ষমতা বিবেচনায় নিয়ে ঋণ দিতে রাজি হয়েছে সংস্থাটি।

আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সারের দাম, মজুদসহ সার্বিক বিষয়ে জানাতে নিজ দফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা জানান।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ইউরিয়া সারের দাম কেজিতে ৬ টাকা বৃদ্ধির ফলে উৎপাদনে প্রভাব পড়বে না। সরকার ইউরিয়া সারের সুষম ব্যবহারের উপর গুরুত্বারোপ করে আসছে। কৃষকদের মধ্যে ইউরিয়া সার বেশি ব্যবহার করার প্রবণতা রয়েছে। ডিএপি সারে শতকরা ১৮ ভাগ নাইট্রোজেন বা ইউরিয়া সারের উপাদান রয়েছে। সে জন্য ডিএপির ব্যবহার বাড়িয়ে ইউরিয়া সারের অপ্রয়োজনীয় ও মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার কমিয়ে আনার জন্য সরকার ডিএপি সারের মূল্য কমিয়েছে।

তিনি বলেন, ইউরিয়া সারের ব্যবহার যৌক্তিক পর্যায়ে রাখতে এবং চলমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে আন্তর্জাতিক বাজারে সারের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশে ডিলার পর্যায়ে ইউরিয়া সারের দাম পুনর্নির্ধারণ করেছে সরকার। বর্তমানে দেশে সব ধরনের সারের পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে।

সারের দাম বৃদ্ধিকে কেন্দ্র করে দেশের কোথাও যাতে কেউ কৃত্রিম সঙ্কট তৈরি করতে না পারে- সেই ব্যাপারে সরকার নিবিড়ভাবে মনিটর করছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, কৃত্রিম সঙ্কট তৈরির মাধ্যমে দাম বেশি নিলে সংশ্লিষ্টদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে কৃষি মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Previous articleআগামী নির্বাচনে বিএনপি’র ইমাম কে, জনগণ জানতে চায়: ওবায়দুল কাদের
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনায় বন্ধ হওয়া ট্রেন চালুর দাবিতে মানববন্ধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।