লেনিন, কার্ল মার্কসের চেতনার রাজনীতি চললে ঢাবিতে ইসলামী রাজনীতি কেন নয়

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করলে আন্দোলনের দাবানল ছড়িয়ে পড়বে বলে হুশিয়ারি দিয়েছেন ইসলামি ছাত্র সমাজের নেতৃবৃন্দ। ডাকসু কর্তৃক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মভিত্তিক ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সমমনা ছাত্র সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তারা এই হুশিয়ারি দেন। সোমবার সন্ধ্যায় পুরানা পল্টনস্থ মাওলানা আতহার আলী রহ. মিলনায়তনে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ইসলামী ছাত্র সমাজের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মাদ নুরুজ্জামানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. ওয়ালীউল্লাহ’র পরিচালনায় সভায় বক্তারা বলেন, সংবিধানে ইসলামকে রাষ্ট্রধর্ম হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া আছে, সেখানে দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাবিতে ধর্মীয় রাজনীতি নিষিদ্ধের নামে ইসলামী রাজনীতি বন্ধ করার আধিকার কারো নেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যদি লেনিন, কার্ল মার্কস ও অন্যান্য চেতনার তৎপরতা চলতে পারে, তাহলে ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী ছাত্রসংগঠনগুলো কেনো তাদের ধর্মীয় রাজনীতি করতে পারবে না? ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মভিত্তিক ছাত্র সংগঠন নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত অবিলম্বে বাতিল করে সকল ছাত্রসংগঠনের সহাবস্থান নিশ্চিত করার দাবি জানান তারা।

বক্তারা বলেন, ডাকসুতে এই ধরনের গণবিরোধী ও ইসলাম বিরোধী চিন্ত-চেতনা যারা লালন করে তারা মূলত ধর্মে-কর্মে বিশ্বাসী নয়। তারা অসাম্প্রদায়িকতা ও মুক্তচর্চার কথা বলে ইসলামকে টার্গেট করেছে। তাদের এই অপচেষ্টা দেশের তওহীদি ছাত্র-জনতা রুখে দিবে। সর্ব দলীয় ইসলামী ছাত্র ঐক্য এই আন্দোলনে নেতৃত্ব দেবে বলে জানান বক্তারা।
সভায় ছাত্র নেতৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মো. হাসিবুল ইসলাম, বাংলাদেশ জমিয়তে তালাবায়ে আরাবিয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুর রহমান, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস (ইসহাক) এর সভাপতি মো. মনসুরুল হক, বাংলাদেশ খেলাফত ছাত্র মজলিস (মামুনুল হক)’র সভাপতি মো. জাকির হোসেন, ইসলামী ছাত্র খেলাফত এর সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশিম শাহী, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র মজলিস (মাহফুজুল হক)’র সাধারণ সম্পাদক মো. উবায়দুর রহমান, বাংলাদেশ খেলাফত ছাত্র আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন, ইসলামী ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সদস্য মো. লোকমান হোসেন, মো. সাদসহ প্রমুখ।।