বাংলাদেশ ডেস্ক: মালয়েশিয়ায় বন্যার মাঝে একটি সুপারশপের পণ্য লুট করার অভিযোগে সাত বাংলাদেশীসহ ৩১ অভিবাসীকে গ্রেফতার করছে দেশটির পুলিশ।

বুধবার (২২ ডিসেম্বর) দুপুরে মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশন বিভাগের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এক বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়েছে।

গত ৪ দিন আগে মালয়েশিয়ায় হয়ে গেল স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা। এতে বিপুল পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতিসহ সারাদেশে মারা গেছে ১৪ জন। টানা ২৪ ঘণ্টার বৃষ্টির পানিতে দেশটির ১৩টি রাজ্যের মধ্যে ৯টি রাজ্যেই বন্যায় প্লাবিত হয়। এসময় বন্যার পানি দেশটির শাহ আলম নামক এলাকার অন্যতম চেইন সুপারশপ মাইডিনে ঢুকে পড়ে। বুক সমান পানিতে সুপারশপের পণ্য ভেসে যায়। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে একদল মানুষ এই মাইডিনের মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এ ৩১ অভিবাসীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আটক ব্যক্তিদের মধ্যে বাংলাদেশের ৭ জন, ইন্দোনেশিয়ার ১০ জন, নেপালের ৯ জন ও মিয়ানমারের ৫ জন রয়েছেন। শাহ আলম জেলা পুলিশের প্রধান সহকারী কমিশনার বাহারুদ্দিন মাত তৈয়ব জানান, জেলা পুলিশ সদর দফতরের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (আইপিডি) তাদেরকে গ্রেফতার করেছে।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘দণ্ডবিধির ৪৫৭ ধারা অনুযায়ী মামলাটি তদন্ত করা হবে।’

তবে আটক ব্যক্তিদের দাবি, টানা ২৪ ঘণ্টার বৃষ্টিতে চারদিক বন্যার পানিতে ভেসে গেছে। তাদের খাবার ফুরিয়ে গিয়েছিল এবং বন্যার কারণে আশেপাশে খাবারের দোকান বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তাই তারা খাবারের জন্য মাইডিনে ছুটে গিয়েছিলেন।

এর আগে, এই ঘটনার সমন্বিত একটি ১১ সেকেন্ডের ভিডিও ক্লিপ সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট ভাইরাল হয়েছিল।

তবে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, এই ঘটনা এমন ব্যক্তিদের দ্বারা সংঘটিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে যারা মারাত্মক বন্যার কারণে খাদ্য সরবরাহ শেষ হয়ে যাওয়ার কারণে বেশ কয়েকটি দোকানে প্রবেশ করতে বাধ্য হয়েছিলেন।

Previous articleচাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা
Next articleবাউফলে ৩৪তম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং বিজ্ঞান মেলার উদ্বোধন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।