বাংলাদেশ ডেস্ক: মরেও শান্তি নেই! মৃত্যুর এক বছর পূর্তির দু’দিন আগেও বিতর্ক ছাড়ল না ফুটবলের রাজপুত্র দিয়াগো ম্যারাডোনাকে। এক কিউবান যুবতী ম্যারাডোনার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থা এবং ধর্ষণের অভিযোগ আনলেন।

ম্যারাডোনা আর অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন ছিল প্রায় সমার্থক। তার অকাল প্রয়াণের কারণ এই অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনই, এমনটা মনে করেন অনেকেই। অভিযোগ ছিল, তিনি ধূমপান, মদ্যপান, মাদক সেবন করতেন যথেচ্ছ। নারীদের প্রতি আকর্ষণও কম ছিল না। বহুবার তাকে জড়িয়ে কেচ্ছা-কেলেঙ্কারিও রটেছে। সম্প্রতি এক কিউবান যুবতী মাভিস আলভারেজ রেগো অভিযোগ করলেন, প্রায় বছর ২০ আগে ম্যারাডোনা তাকে যৌন হেনস্থা ও ধর্ষণ করেন।

বর্তমানে ৩৭ বছর বয়স রেগোর। ২০ বছর আগে নাবালিকা অবস্থায় তার সাথে দেখা হয় ম্যারাডোনার। বুয়েনোস আইরেসের এক সংবাদমাধ্যমকে রেগো জানিয়েছেন, ১৬ বছর বয়সে তার সাথে ম্যারাডোনার দেখা হয়েছিল। ফুটবল তারকা তার অনিচ্ছা সত্বেও তাকে জড়িয়ে ধরতেন। নিগ্রহ এবং ধর্ষণও করেছিলেন। রোগো জানিয়েছেন, সেই সময় কিউবায় মাদক সংক্রান্ত সমস্যার কারণে চিকিৎসা চলছিল ম্যারাডোনার। ‘প্রথম দেখাতেই আমি মোহিত হয়ে যাই। আমাকে তিনি একেবারে জিতে নিয়েছিলেন।’ বলেন রেগো।

কিন্তু মাস খানেকের মধ্যে মোহভঙ্গ হয়। রেগো অভিযোগ করেন, তাকে জোর করে কোকেন নিতে বাধ্য করেছিলেন ম্যারাডোনা। এরপরেই নাকি তাকে ধর্ষণ করেন। বর্তমানে দুই সন্তানের মা রেগোর কথায়, চার-পাঁচ বছর সম্পর্ক ছিল আমাদের। আমি ওকে ভালবাসতাম, কিন্তু ঘৃণাও করতাম। এমনকী আত্মহত্যার কথাও ভেবেছিলাম।

২০২০ সালের ২৫ নভেম্বরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ম্যারাডোনার। সেই মৃত্যু নিয়েও এখনো রহস্য রয়েছে। মৃত্যুর আসল কারণ, চিকিৎসকের গাফিলতি ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে।

Previous articleসাপাহারে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন প্রদান
Next articleসোনাইমুড়ীতে মাছ ধরতে গিয়ে হেলাল ফিরল লাশ হয়ে
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।