বাংলাদেশ ডেস্ক: ২০২৫ সালে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি অনুষ্ঠিত হবে পাকিস্তানে। আইসিসির এ আয়োজনে ভারত ও বিশ্বের অন্যান্য ক্রিকেট দল অংশ নেবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে। তিনি জানান, পাকিস্তানের বর্তমান নিরাপত্তা পরিস্থিতিতে সেখানে খেলতে যেতে কোনো সমস্যা নেই। আশা করছি ভারতসহ অন্যান্য দল পাকিস্তানে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে খেলতে যাবে।

কয়েক দিন আগেই ২০২৪-২০৩১ সালে বিভিন্ন ইভেন্ট আয়োজক দেশের নাম ঘোষণা করেছে আইসিসি। তালিকা অনুযায়ী ২০২৫ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি হবে পাকিস্তানে। যার মাধ্যমে ২৯ বছর পর আইসিসির কোনো ইভেন্ট আয়োজন করার সুযোগ পেল পাকিস্তান। সর্বশেষ ১৯৯৬ সালে ভারত, শ্রীলংকার সাথে যৌথভাবে ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল পাকিস্তান। এরপর আইসিসির আর কোনো ইভেন্ট আয়োজন করেনি পাকিস্তান। ২০১১ সালে যৌথভাবে আয়োজক দেশ হবার কথা ছিল পাকিস্তানের। কিন্তু ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলংকা ক্রিকেট দলের বাসে উগ্রবাদী হামলার পর পাকিস্তানের মাটিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বন্ধ হয়ে যায়।

গত তিন-চার বছরে কিছু দেশের ক্রিকেট দল পাকিস্তান সফর শুরু করে। তবে গত সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানের নিরাপত্তা নিয়ে আবারো প্রশ্ন উঠেছে। পাকিস্তানে টি-২০ সিরিজ খেলতে গিয়ে, ম্যাচ শুরুর ৩০ মিনিট আগে পাকিস্তান সফর বাতিল করে দেয় নিউজিল্যান্ড। এরপর গত অক্টোবরে পাকিস্তান যাবার কথা ছিলো ইংল্যান্ডের। পরে তাও বাতিল হয়ে যায়।

সাম্প্রতিক এমন ঘটনার পরেও ২০২৫ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আয়োজক হিসেবে পাকিস্তানের নাম ঘোষণা করে আইসিসি। এ ব্যাপারে বার্কলে বলেন, ‘বহু বছর পর পাকিস্তানে ফিরছে আইসিসি ইভেন্ট। গত কয়েক সপ্তাহে যা ঘটেছে সব কিছু বাদ দিয়ে কোনো সমস্যা ছাড়াই এগিয়ে গেছে।’

বর্তমান পরিস্থিতির বিবেচনায় পাকিস্তানকে আয়োজক করা হয়েছে বলে জানান বার্কলে। তিনি বলেন, ‘এখন যা পরিস্থিতি, তাতে দলগুলোর পাকিস্তানে খেলতে যেতে কোনো সমস্যা হবে না। আমরা গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সব দিক বিবেচনা করেই পাকিস্তানে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। যদি সেখানে সমস্যা থাকত, তা হলে খেলা দিতাম না। ২০২৫ সাল এখনো দেরি আছে। আশা করবো পাকিস্তান তাদের নিরাপত্তার যাবতীয় ব্যবস্থা করতে পারবে। আমাদের বিশ্বাস, পাকিস্তান ভালোভাবে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আয়োজন করতে পারবে।’

তবে ভারতীয় দল পাকিস্তানে যাবে কি-না, তা নিয়ে প্রশ্নও উঠেছে। বার্কলে বলেন, ‘আশা করি, ভারতসহ অন্যান্য দেশগুলো চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলতে পাকিস্তানে যাবে।’

ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার দ্বিপাক্ষীক সিরিজ না হওয়া নিয়েও মুখ খুলেছেন বার্কলে। তবে এতে, আইসিসির কিছুই করার নেই বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, ‘ভারত-পাকিস্তানের ক্রিকেট সম্পর্ক নতুন করে চালু করার ব্যাপারটা সত্যিই বড় চ্যালেঞ্জ। যেখানে দু’দেশের রাজনৈতিক সম্পর্ক জড়িয়ে রয়েছে, সেখানে আমাদের খুব বেশি কিছু করার নেই। তবে আমরা আশা করতে পারি, ক্রিকেটের মাধ্যমে যেন দু’দেশের সম্পর্ক ভাল হয়।’ ২০১৭ সালের সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ভারতকে হারিয়ে শিরোপা জিতে পাকিস্তান।

Previous articleখালেদা জিয়াকে নিয়ে সরকারের উদ্দেশ্য রহস্যজনক: রিজভী
Next articleবঙ্গবন্ধুকে নিয়ে পৌর মেয়র আব্বাসের বিতর্কিত অডিও প্রকাশ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।