বাংলাদেশ প্রতিবেদক: দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৪ রান তুলতেই চার উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ। মিরপুর টেস্টে হারের শঙ্কায় বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে জোড়া সেঞ্চুরিতে শ্রীলঙ্কা করেছে ৫০৬ রান। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ করেছিল ৩৬৫ রান।

টেস্ট ক্যারিয়ারে এতদিন যা হয়নি, এবার সেই অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হলেন তামিম ইকবাল। এক টেস্টের দুই ইনিংসেই শূন্য রানে আউট হলেন তিনি প্রথমবারের মতো।

মিরপুর টেস্টের প্রথম ইনিংসে চার বল খেলেও রানের খাতা খুলতে পারেননি। আউট হয়েছিলেন ফার্নান্দোর বলে জয়াবিক্রমার হাতে ক্যাচ দিয়ে।

এবার দ্বিতীয় ইনিংসেও ডাক মারলেন। ফিরলেন শূন্য রানে। এবার বল খেলেছেন ১১টি। আউট হন প্রথম ইনিংসের মতো ফার্নান্দোর বলেই। ক্যাচ দেন মেন্ডিসের হাতে। তিনবারের চেষ্টায় বল মুঠোয় জমাতে পারেন কুসল মেন্ডিস। প্রথমে বলে পড়ে তার বুকে, তাই কিছুটা ব্যথাও পান তিনি।

তামিমের বিদায়ের পর টিকতে পারেননি নাজমুল হোসেন শান্তও। ১১ বলে দুই রান করে তিনি হন রান আউট। অফ ফর্মে থাকা অধিনায়ক মুমিনুল হক এবারো ফ্লপ। রাজিথার বলে উইকেটের পেছনে ডিকভেলার কাছে ক্যাচ দেন তিনি শূন্য রানে। বল খেলেছেন দুটি। ২ রান করে ফিরে গেছেন তিনে নামা নাজমুল হোসেন শান্তও।

আগামীকাল শুক্রবার পঞ্চম দিনে টাইগারদের জন্য বড় পরীক্ষা।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ করেছিল ৩৬৫ রান। জবাবে ম্যাথুস ও চান্দিমালের সেঞ্চুরিতে ৫০৬ রান করে শ্রীলঙ্কা। ১৪১ রানে পিছিয়ে থেকে দিনের শেষ বেলায় ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই দুর্দশায় পড়ে স্বাগতিকরা। ২৩ রানে হারায় চার উইকেট। ক্রিজে অপরাজিত দুই নির্ভরযোগ্য ব্যাটার লিটন ও মুশফিক। এই জুটিই ভরসা এখন বাংলাদেশের।

দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ষষ্ঠ ওভারে প্রথম উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ১১ বল খেলেও রানের খাতা খুলতে পারেননি তামিম। টেস্টে দুই ইনিংসে প্রথমবারের মতো শূন্য দেখলেন দেশ সেরা এই ওপেনার।

ফার্নান্দোর বলেই দুইবার আউট তামিম।
এরপর অহেতুক রান আউটের শিকার নাজমুল হোসেন শান্ত। ১১ বলে তিনি করেন মাত্র দুই রান। দলীয় ১৯ রানে ফেরেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। রাজিথার বলে তিনি ফেরেন রিক্ত হস্তে, শূন্য রানে।
এরপর বিদায় নেন ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয়ও।
একটু থিতু হলেও ফার্নান্দোর বলে মেন্ডিসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ২৭ বলে ১৫ রান করে। ছোট্ট ইনিংসে তিনি হাকান তিন চার।

এর আগে গোটা দিন শ্রীলঙ্কার হয়ে ব্যাট হাতে শাসন করেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস ও দিনেশ চান্দিমাল।
দু’জনই পান সেঞ্চুরি। চান্দিমাল ১২৪ রান করে বিদায় নিলে ধস নামে লঙ্কান ব্যাটিংযে। ৫০৬ রানে গুটিয়ে যায় তাদের ইনিংস। ১৪৫ রানে অপরাজিত থাকেন ম্যাথুস।

চার বছর পর টেস্টে বাংলাদেশের হয়ে পাঁচ উইকেট বগলদাবা করেন সাকিব আল হাসান। বাকি চার উইকেট নেন পেসার ইবাদত হোসেন। একটি ছিল রান আউট।

চতুর্থ দিন শেষে বাংলাদেশ এখনো ১০৭ রানে পিছিয়ে। পঞ্চম দিনে বাংলাদেশ কতটা চমক দিতে পারে, তাই দেখার বিষয়।

Previous articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে বিএনপি থেকে ৬১ নেতার পদত্যাগ
Next articleট্যাক্স দিয়ে বিদেশে পাচার হওয়া টাকা দেশে আনা যাবে: অর্থমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।