বাংলাদেশ প্রতিবেদক: সর্বশেষ ২০০৫-০৬ মৌসুমে পাকিস্তান সফরে যায় ভারত। আর চিরবৈরী দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সিরিজ অনুষ্ঠিত হয়েছে ভারতের মাটিতে সর্বশেষ ২০১২ সালে। এরপর আর মুখ দেখা-দেখি হয়নি নিজেদের সিরিজে। তবে সুখবর পাচ্ছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। দীর্ঘ ১৭ বছর পর আবারো পাকিস্তান সফর যাওয়ার কথা ভাবছে রোহিত-বিরাটরা।

আইসিসি ও এসিসির সূচি অনুযায়ী- ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বাবর-রিজওয়ানদের দেশে এশিয়া কাপ আয়োজন হওয়ার কথা। এরপর ভারতের মাটিতে আয়োজন করা হবে ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ।

ক্রিকেট বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘ক্রিকবাজ’র দাবি- পাকিস্তানকে নিজেদের দেশে আনতে হলে তাদের দেশে যাওয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ। তাই ঘরের মাঠে সুষ্ঠুভাবে বিশ্বকাপ সম্পন্ন করতে রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলিদের চিরপ্রতিদ্বন্দী দেশে পাঠানোর কথা ভাবছে ভারতীয় বোর্ড বিসিসিআই।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজ বলছে, ১৮ অক্টোবর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বার্ষিক সাধারণ সভা। এর আগে গত আলোচনায় এই ইস্যু নিয়ে বোর্ড কর্তারা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেছেন। তবে শেষ পর্যন্ত এই ইস্যু নিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কেন্দ্রীয় সরকারের সবুজ সংকেতের অপেক্ষা করতেই হবে।

ওই সংবাদের আরো বলা হয়েছে, এই ইস্যু নিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বোর্ড কর্তা বলেন, ‘দুই দেশের মধ্যে সিরিজ আয়োজন নিয়ে কিন্তু শেষ কথা কেন্দ্রীয় সরকারই বলবে। এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে ভারত সরকার।’ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সবুজ সংকেত ছাড়া যে ঋষভ পন্থ বা জসপ্রীত বুমরাদের দল পাকিস্তান উড়ে যেতে পারবেন না, এটা সবাই জানে।

তবে বোর্ডের বর্তমান সচিব জয় শাহ আবার এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের সভাপতি। তিনি হাইকমান্ডের সাথে কথা বলে ভারতীয় দলের পাক সফরে যাওয়ার ছাড়পত্র বের করে আনতে পারেন কিনা সেটাই দেখার বিষয়।

সীমান্ত সন্ত্রাস ও রাজনৈতিক উত্তেজনার জন্য সেই ২০১২ সাল থেকে দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বন্ধ। ভারত শেষবার পাকিস্তানে ক্রিকেট খেলতে গিয়েছিল ২০০৫-০৬ মৌসুমে। সেবার রাহুল দ্রাবিড়ের নেতৃত্বে টেস্ট এবং এক দিনের সিরিজ খেলেছিল টিম ইন্ডিয়া। এরপর দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হলেও পাকিস্তানে যায়নি ভারত।

২০১২-১৩ মৌসুমে শেষবার পাক দল ভারতের মাটিতে পা রেখেছিল। ২০১২ সালের পর রাজনৈতিক কারণে দ্বিপাক্ষিক সিরিজও বন্ধ হয়ে যায় দুই দেশের মধ্যে। বিশ্বকাপ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, এশিয়া কাপের মতো প্রতিযোগিতায় মুখোমুখি হতো দুই দেশ।

যদিও আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এখনো দুই দেশের মধ্যে ব্যাট-বলের লড়াই দেখা যায়নি। আগামী ২৩ অক্টোবর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ‘মাদার অফ অল ব্যাটেল’। মোহাম্মদ রিজওয়ান- সূর্যকুমার যাদবের ডুয়েল দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেট দুনিয়া। এর আগে বিসিসিআই-এর এই পদক্ষেপে দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা ফের স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন।

Previous articleজেনিনে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে এক চিকিৎসকসহ ২ ফিলিস্তিনি নিহত
Next articleনোয়াখালীতে শর্ট সার্কিটের আগুনে পুড়ল ১৭ দোকান
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।