বাংলাদেশ প্রতিবেদক: বিশ্বকাপ স্কোয়াডে তার অন্তর্ভুক্তি নিয়ে বিস্ময়ের সীমা ছিল না ক্রিকেট মহলে। সবার মনেই প্রশ্ন ছিল, কোন বিবেচনায় নাজমুল হোসেন শান্ত দলে জায়গা পেলো! তখন ইমপ্যাক্টকে ঢাল করে শান্তের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীরাম শ্রীধরন। ফলে সমালোচনা শুরু হয় শ্রীরামকে ঘিরেও।

তবে যেই শান্তকে দলভুক্ত করায় বিসিবি’র মুণ্ডপাত হচ্ছিল সব জায়গায়, দিনশেষে সেই নাজমুল হোসেন শান্তই দলের সেরা পারফর্মারদের একজন। যাকে বিকল্প ওপেনার হিসেবে নেয়া হয়েছিল বিশ্বকাপে, সেই শান্তই বিশ্বকাপের আগে থেকেই হয়ে যান দলের অটো চয়েজ ওপেনার। অতঃপর আজ যখন দেশে ফিরছেন, তখন এই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের মালিক তিনি।

বিশ্বকাপে ৫ ম্যাচ খেলে ৩৬ গড়ে ১৮০ রান করেছেন শান্ত। স্ট্রাইক রেট ১১৫। আগের ৮ ম্যাচে যেখানে কোন অর্ধশতক হাঁকাতে পারেননি শান্ত, সেখানে এই পাঁচ ম্যাচে পেয়েছেন দুটো ফিফটির দেখা। এমন পারফরম্যান্সের পর শান্তকে নিয়ে তাই উচ্ছ্বসিত এখন সবাই। বিশ্বকাপের বড় মঞ্চে নিজেকে প্রমাণ করে দিয়ে সমালোচকদের যেন কড়া জবাবই দিয়েছেন এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।

শান্তকে নিয়ে উচ্ছ্বসিত বাংলাদেশ দলের টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। সোমবার গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘তাকে নিয়ে এতো কথা বলার পরও সে যে পারফর্ম করেছে এটা অসাধারণ। আমি মনে করি, ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম সেরা একজন ক্রিকেটার হবে শান্ত।’

অতঃপর বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়ায় যারা শান্তর সমালোচনা করেছিলেন, তাদের উদ্দেশ্যে খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন, ‘আমার কাছে অবাক লাগে যে, শান্তকে নিয়ে কেন এতো কথা হয়েছিল! আমি মনে করি, একটা ছেলের প্রতি এটা অবিচার। সে দলে সুযোগ পেয়েছে, এটা তো তার দোষ না। দোষ যদি হয় তাহলে সেটা আমাদের টিম ম্যানেজমেন্টের হওয়া উচিত।’

Previous articleএক বৈঠকে কুরআন খতম করে ফিলিস্তিনি তরুণীর রেকর্ড
Next articleরাজশাহীতে বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ মাদক কারবারি গ্রেফতার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।