নরসিংদীতে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মাস্টারসহ ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার সন্ধ্যার পর শহরের চিনিশপুর এলাকায় জেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে থেকে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচাল ও নাশকতার অভিযোগে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও জেলার সভাপতি খায়রুল কবির খোকন তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেন।

পুলিশ ও জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল বুধবার জেলা বিএনপির কার্যালয়ে ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ আলোচনা সভা করে জেলা বিএনপি। সেখান থেকে অনুষ্ঠান শেষ করে নরসিংদী বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মাষ্টার, শিবপুর উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সুমন মোল্লাসহ ১৫-২০ নেতাকর্মী শিবপুরে ফিরছিলেন। এরই মধ্যে বিএনপির কার্যালয়ের সামনেই নরসিংদী সদর মডেল থানা পুলিশ তাদেরকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে ১৫ জনকে গ্রেপ্তার করে।

খায়রুল কবির খোকন বলেন, ‘নরসিংদী জেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মাষ্টার একজন স্বচ্ছ রাজনৈতিক ব্যাক্তি। তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ। বিনা কারণে কোনো মামলা ছাড়াই তাকে আটক করা হয়েছে। মামলা হামলা করে সুস্থ রাজনৈতিক চর্চা হয় না। এটা কোনো গণতান্ত্রিক পন্থা নয়। বর্তমান সরকার রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের মামলা হামলার মাধ্যমে ধাবিয়ে রাখতে চায়। আসলে বর্তমান সরকার গণতন্ত্রের লেবাস নিয়ে দেশে একনায়কতন্ত্র কায়েম করতে চায়। তিনি জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদকসহ সকল নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সৈয়দুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে নরসিংদী সদর মডেল থানায় নাশকতা ও নির্বাচন বানচালের পরিকল্পনার অভিযোগে মামলা রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অন্য থানায় মামলা আছে কি না তা খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

Previous articleবিশ্বকে বদলে দেওয়া ২৫ নারীর তালিকায় প্রিয়াঙ্কা চোপড়া
Next articleদুই বাংলাদেশি যুক্তরাষ্ট্রের সিনেট সদস্য নির্বাচিত
Ajker Bangladesh Online Newspaper, We serve complete truth to our readers, Our hands are not obstructed, we can say & open our eyes. County news, Breaking news, National news, bangladeshi news, International news & reporting. 24 hours update.