শার্শার ভূমি দস্যু মহিবুর মাদক ব্যবসা করে রাতারাতি কোটিপতি

শাহারিয়ার হুসাইন: যশোরের শার্শায় সরকারি জায়গা দখলে নিয়ে ভবন নির্মাণের সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় ২ সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও সংশ্ল্যিষ্ট কর্তৃপক্ষ নিরব থাকায় সচেতন মহলে চরম হতাসার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর এলাকাবাসী মুখ খুলতে শুরু করেছে। কেচো খুড়তে বেরিয়ে এসেছে কেউটে।
সূত্র জানায়, দূর্ধষ বিএনপি ক্যাডার ভূমি দস্যু মহিবুর লোক দেখানো বৈধ ব্যবসার আড়ালে চোরাচালান ও মাদক ব্যবসা করে রাতারাতি কোটি টাকার মালিক বনে গেছেন। আদলতে তার নামে একাধিক চোরাচালান ও মাদক দ্রব্য আইনে মামলা চলছে।বর্তমানে তিনি জামিনে আছেন। চোরাচালান ও মাদক ব্যবসা করে উপার্জন করা অর্থ দিয়ে ভূমি অফিসের অসাধু কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে একের পর এক বহুতল ভবন নির্মাণ করে চলেছেন তিনি। এছাড়া পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমোদন না নিয়ে তিনি বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন।
এলাকাবাসী ভূমি দস্যু মহিবুরের সরকারী জমি দখল করে নির্মাণ করা অবৈধ ভবন উচ্ছেদ করতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, পরিবেশ অধিদপ্তর ও সড়ক বিভাগের কাছে জোর দাবী জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া সামটা গ্রামের জামতলা নামক স্থানে যশোর – সাতক্ষীরা মহাসড়কের পাশে সরকারি রাস্তার জায়গা দখল করে অবৈধভাবে বহুতল ভবন নির্মাণের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে ঐ গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে ভূমি দস্যু মহিবুর। ফলে যশোর – সাতক্ষীরা মহাসড়কের পাশের জামতলার জনবহুল এই এলাকায় যানজট ও সড়ক দূঘর্টনা হওয়ার আশঙ্কা করছেন সচেতনমহল।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মহিবুরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমার নামে একটি মামলা ছিল, তা মিটে গেছে।

এ ব্যপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি ) মৌসুমি জেরিন কান্তা বলেন, বিষয়টি নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে কি না আমি জানি না!!তবে এখন লিখলেও কিছু হয় না। বাংলাদেশ তো আপনি টাকা দেবেন,সবই সম্ভব হয়ে যাবে।