ভুয়া ডিবির ছিনতাইয়ের কবলে যুবক, বাঁচাতে গিয়ে গণধোলাই খেল র‌্যাব

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ভুয়া ডিবি পুলিশের ছিনতাইয়ের কবলে পড়া যুবককে বাঁচাতে গিয়ে গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) দুই সদস্য। রোববার বিকেলে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার রয়ড়াদিঘী এলাকায় বগুড়া-নাটোর সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

ছিনতাইয়ের কবলে পড়া বয়ড়াদিঘী গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে আব্দুস সামাদ (৩৬) বলেন, উপজেলার রানীরহাট বন্দর থেকে বাড়ি ফিরছিলাম। এ সময় অপরিচিত এক ব্যক্তি এসে নিজেকে ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে হঠাৎ করে আমার হাতে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে দেয়। সেই সঙ্গে আমার কাছে থাকা এক লাখ টাকা কেড়ে নেয় ওই ব্যক্তি।

কিছু বুঝে ওঠার আগেই আরও দুই ব্যক্তি এসে ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে আমাকে মারধর শুরু করেন। একপর্যায়ে আমি মাটিতে পড়ে গেলে দৌড়ে পালাতে শুরু করেন তিন ব্যক্তি।

এ সময় চিৎকার দিয়ে হ্যান্ডকাপ পরা অবস্থায় তাদের পেছনে পেছনে ধাওয়া করলে আশপাশের লোকজন এসে আমাকে উদ্ধার করেন। পরে আহত অবস্থায় আমাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে, গণধোলাইয়ের শিকার বগুড়া র‌্যাব-১২-এর সদস্য মঞ্জু বলেন, সাদা পোশাকে এক সহকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে নন্দিগ্রাম থেকে বগুড়া র‌্যাব অফিসে আসছিলাম। বয়ড়াদিঘী এলাকার বগুড়া-নাটোর সড়কে হ্যান্ডকাপ পরা এক ব্যক্তিকে দৌড়াতে দেখে মোটরসাইকেল থামিয়ে কারণ জানতে চাইলে ওই ব্যক্তি বলেন ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ছিনতাই করে পালাচ্ছে।

তিনি বলেন, ছিনতাইয়ের বিষয়টি শুনে ধাওয়া দিয়ে এক ভুয়া ডিবি পুলিশকে ধরে ফেলি। এরই মধ্যে স্থানীয় একদল নারী-পুরুষ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ভুয়া ডিবি পুলিশ সন্দেহে আমাদের মারধর শুরু করেন। র্যাবের পরিচয়পত্র দেখানোর পরও আমাদের মারপিট করে তারা। পরে র্যাব অফিসে জানানোর পর টহল র্যাবের সদস্যরা গিয়ে আমাদের উদ্ধার করেন।

ঘটনাস্থলে থাকা এক র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, ডিবি পুলিশ পরিচয়দানকারী একজনকে আটক করা হয়েছে। এখনো কিছু বলা যাচ্ছে না। তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে সঠিক তথ্য জানা যাবে।

শাজাহানপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিম উদ্দিন বলেন, শুনেছি র্যাবের হাতে ভুয়া এক ডিবি পুলিশ আটক হয়েছে। এখনো মামলা হয়নি। আসল ঘটনা জানার পর মামলা হবে।