উখিয়ায় মাছ,মাংস,সবজির দাম চড়া

কায়সার হামিদ মানিক: উখিয়া উপজেলার হাট বাজার গুলোতে ৬০ টাকা কেজি দরের নিচে সবজি মিলছে না। শাকের আঁটিও ৩০-৪০ টাকা। এতে নিম্ন আয়ের মানুষে মাঝে দূর্ভোগ দেখা দিয়েছে। শুক্রবার বিভিন্ন হাট বাজার ঘুরে সবজির এমন চড়া দাম লক্ষ্য করা গেছে। বিক্রেতারা বলছেন, বাজারে সবজির সরবরাহ কম।
বাজার ভেদে দামের কিছুটা তারতম্য থাকলেও ৬০-৭০ টাকার নিচে সবজি মিলছে না।উখিয়া সদর দারোগা বাজারে প্রতিকেজি ঢেঁড়স ৬০ টাকা। একইভাবে বেগুন, শসা, বরবটি, করলা,ঝিঙ্গা, পটল, কচু ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
কোটবাজার, মরিচ্যা, সোনারপাড়া, কুতুপালং বাজারে প্রতিকেজি সবজি ৫ থেকে ১০ টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে। এ সব বাজারে শসা, বরবটি, করলা, কচুর লতির কেজি ৭০ থেকে ৮০ টাকা। সবজির মধ্যে ক্রেতাদের হাতের নাগালে রয়েছে আলু, মিষ্টি কুমড়া। প্রতিকেজি আলু ২৫-৩০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
সবজির পাশাপাশি মাছ-মাংসের দামও চড়া। প্রতিকেজি গরুর মাংস হাড়সহ বিক্রি হচ্ছে ৬০০ টাকায়; হাড়ছাড়া ৭০০ টাকা। খাসির মাংস ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকা।বয়লার মুরগী প্রতি কেজি ১৪৫ থেকে ১৬০ টাকা।
মাছের মধ্যে ইলিশ মাছের কেজি আকারভেদে ৫০০-১২০০ টাকা। লাল কোরাল ৪০০-৫০০ টাকা, কৈ কোরাল ৫০০-৫৫০ টাকা, রূপচাঁদা (বড়) ৯০০ টাকা, ছোট রূপচাঁদা ৮০০ টাকা, কালো চাঁদা ৬০০ টাকা, বাগদা চিংড়ি ৮০০-১০০০ টাকা, লইট্ট্যা ১৪০ টাকা, কাতলা ২৫০-৩৫০ টাকা কেজিতে।
উখিয়া বাজারের সবজি ব্যবসায়ী মপিজ সওদাগর বলেন, নানা কারণে বাজারে সবজির সরবরাহ অর্ধেকে নেমে এসেছে। ফলে দাম কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।
কোট বাজারে বাজার করতে আসা রিক্সা চালক বশির জানান, এখন সবজি খেয়েও পরিবার নিয়ে বেঁচে থাকা মুশকিল। যেখানে এক কেজি সবজি প্রয়োজন, সেখানে ৫০০ গ্রাম কিনতে বাধ্য হচ্ছেন। ৫০০ টাকার সবজি কিনেও পরিবারে ৩ দিন চলছে না।