টাঙ্গাইলে প্রতিবেশিকে ফাঁসাতে গৃহবধূকে হত্যা আটক ৩

আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে প্রতিবেশিকে ফাঁসাতে ও ঋণের দায় থেকে মুক্তি পেতে গৃহবধূকে হত্যা করা হয়েছে।এ হত্যা কান্ডে জড়িত স্বামী, সন্তান ও ভাতিজা। পুলিশ অভিযুক্ত ওই তিনজনকেই গ্রেফতার করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা পুলিশের কাছে খুনের কথা স্বীকার করেছে। ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিরমূলক জবানবন্দির জন্য আসামীদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপারের সভাকক্ষে প্রেস ব্রিফিংএ তথ্য জানান পুলিশ সুপার রঞ্জিত কুমার রায়। তিনি আরও জানান, গত ১৪ অক্টোবর সোমবার মির্জাপুর উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের আউলিয়াবাদ এলাকা থেকে সুফিয়া বেগম নামের এক নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন নিহতের ভাই বাদী হয়ে মির্জাপুর থানায় অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে পুলিশের বিভিন্ন সোর্স এবং তথ্য প্রযুক্তি ব্যাবহার করে হত্যার সাথে জড়িত নিহতের স্বামী আলাল উদ্দিন, ছেলে শরিফুল ইসলাম এবং ভাতিজা স্বপন মিয়াকে আটক করা করে। পুলিশের জিঞ্জাসাবাদে তারা জানায়, প্রতিবেশির সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ পারিবারিক বিরোধ ছিল। এ কারণে তাদের ফাঁসাতে এবং সুফিয়ার নামে বিভিন্ন এনজিও্#৩৯;র লাখ লাখ টাকার ঋন মওকুফ পেতে তাকে হত্যা করা হয়। হত্যা পর তার লাশ বিলের পানিতে ভাসিয়ে দেয়া হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে। আসামীদের ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবান বন্দির জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে।