বাধার মুখে বন্ধ হয়ে গেলো রংপুরের খোকশা ঘাঘট নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম

জয়নাল আবেদীন: এলাকাবাসীর বাঁধার মুখে বন্ধ হয়ে গেলো রংপুরের খোকশা ঘাঘট নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম। বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর পার্কের মোড়ে নদী দখল করে গড়ে ওঠা স্থাপনা উচ্ছেদ ও খনন কার্যক্রমে দখলদাররা বাধা সৃষ্টি করলে কাজ বন্ধ করে দেয় ঠিকাদার। এলাকাবাসীর দাবী উচ্ছেদ কার্যক্রম বন্ধে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা থাকা সত্তেও রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড ও ঠিকাদারের লোকজন মাটি খনন ও স্থাপনা উচ্ছেদ করতে আসলে তারা বাধা দেন। বাধার মুখে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন উচ্ছেদ কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। রিভার ইন পিপল এর পরিচালক ও রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্বদিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষক এবং নদী রক্ষা কমিটির অন্যতম জেল সদস্য ড. তুহিন ওয়াদুদ জানান, নগরীর মার্কের মোড় এলাকার পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া খোকসা ঘাঘট নদীটি কেডি খাল ও শ্যামা সুন্দরীর খালের মাহিগঞ্জ সাথমাথা এলাকা থেকে নগরীর মর্ডান মোড়ে গিয়ে ঘাঘট নদীর সাথে মিশেছে।নদীর দখল দারদের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী উচ্ছেদ করা দরকার। সে জন্য রংপুর জেলা প্রশাসকের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা থাকা উচিৎ। এর আগে শতাধিক দখলদারকে চিহিৃত করে গত ২৩ ডিসেম্বর দখলকৃত ৩শ মিটার জায়গা উদ্ধার শুরু করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। প্রথম দফায় প্রায় দুই একর নগরীর জায়গা দখলদারদের কাজ থেকে উদ্ধার করেছে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড।ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি মতলুব হোসেন বাদল হাইকোর্টের আদেশ দেখিয়ে এলাকাবাসী নদী খনন ও উচ্ছেদ অভিযানে বাধা সৃষ্টি করে। আমরা রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীদের বিষয়টি জানিয়েছি। তারা কি পদক্ষেপ নেয় সেটা জানার পর কাজ শুরু হবে বলে জানান তিনি। তবে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডেও কোন প্রকৌশলী এব্যাপারে কথা বলতে রাজি হননি।