কক্সবাজারে মোয়াজ্জিন-কলেজ ছাত্রসহ ১০ জন করোনায় আক্রান্ত, বাড়ি লকডাউন

বাংলাদেশ প্রতিবেদক: কক্সবাজারের চকরিয়া-পেকুয়ায় মসজিদের মোয়াজ্জিন ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রসহ ১০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মঙ্গলবার (৫ মে) কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপতালে নমুনা পরীক্ষার পর তাদের করোনা শনাক্ত হয়।

চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ শাহবাজ ৯ জনের করোনা শনাক্তের তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এদিকে, পেকুয়ায় একজন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সে পেকুয়া সদরের মোস্তাক আহমদের ছেলে কায়সার (২৫) বলে জানা গেছে।

ডা. মোহাম্মদ শাহবাজ বলেন, চকরিয়া উপজেলা থেকে ২৪ জনের নমুনা সংগ্রহের পর কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তার মধ্যে ৯ জনের করোনা পজেটিভ আসে।

এরা হলেন- উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ইসলামনগর গ্রামের আহমদ কবিরের ছেলে ও চকরিয়া উপজেলা পরিষদ মসজিদের মোয়াজ্জিন মোহাম্মদ নোমান শিবলী (৪২), চকরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্নতাকর্মী দীপক মল্লিক (৩৭), সাহারবিল পূর্ব পাড়ার কবির হোসেনের ছেলে ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র তৌহিদ ইকবাল রাকিব (২২), ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ডেইলপাড়ার ইব্রাহিম খলিলেল ছেলে ও বান্দরবান সরকারি কলেজের ছাত্র মো. মিজান (২৩), চকরিয়া পৌরসভা ফুলতলার বাসিন্দা মৃত মাষ্টার মোক্তার আহমদের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৫০), মেয়ে নাসরিন বেগম (২৫), পুত্রবধূ রেখা বেগম (২৪), একই এলাকার আবুল বশরের ছেলে কাঠমিস্ত্রি সালাউদ্দিন (৪৬) ও চকরিয়া পৌরসভার হাসপাতাল পাড়ার মৃত মোহাম্মদ মিয়ার ছেলে নুরুল আবছার (৫০)।

আক্রান্তদের মধ্যে আনোয়ারা বেগম, মেয়ে নাসরিন বেগম ও পুত্রবধূ রেখা একই পরিবারের। গত ২৯ এপ্রিল চকরিয়া পৌরসভার ফুলতলা এলাকার অবসরপ্রাপ্ত প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষক মোক্তার আহমদ চট্টগ্রামে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়ার পর তার পরিবারের তিনজন আক্রান্ত হলেন।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ বলেন, করোনা শনাক্তের পর আক্রান্তদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এ নিয়ে চকরিয়ার এসিল্যান্ডসহ ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।