রাজাপুরে বখাটেদের হামলায় আহত তিন, আটক ৩

রেজাউল ইসলাম পলাশ: ঝালকাঠির রাজাপুরে ইভটিজিং এর বিচার চাওয়া সহ মাদক সেবীদের এলাকায় অপ্রিতিকর ঘটনার ধারাবাহিকতায় উঠতি বয়সের যুবকদের হামলায় শিকার হয়েছেন পিতা-পুত্রসহ ৩ জন। ঘটনাটি শুক্রবার (২৮আগষ্ট) সন্ধ্যায় উপজেলার শুক্তাগর ইউনিয়নের কেওতা ঘিগড়া মাদ্রাসার সামনের রাস্তায় ঘটে। ঘটনার পরে আহতদের গুরুতর রক্তাক্ত অবস্থায় চিকিৎসার জন্য রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে সেখানেও হামলাকারীরা এসে পুনরায় হামলার প্রস্তুতি নিলে রাজাপুর থানা পুলিশ খবর পেয়ে মোঃ সাইম খান ও মোঃ কামরুল খান কে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকা থেকে আটক করে। এসময় আটককৃতরা সাদা পোশাকে থাকা পুলিশের উপর হামলা চালিয়েছে বলে জানা গেছে। আটককৃতরা স্থানীয় ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন আ্#৩৯;লীগ সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহজাহান খানের পুত্র। এছাড়াও শনিবার সকালে ইভটিজিংয়ের প্রধান অভিযুক্ত জামাল হাওলাদারকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করে। জানাগেছে, শুক্তাগড় ইউনিয়নের বমনকাঠি এলাকার নবম শ্রেনীর এক শিক্ষার্থীকে কু-প্রস্তাব দেওয়া সহ বিভিন্ন সময়ে উত্যক্ত করে আসছিল। শিক্ষার্থীর পরিবার নিরুপায় হয়ে গত সোমবার (২৪ আগস্ট) রাজাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের জের ধরে আজ সন্ধ্যায় কেওতা মাদ্রাসার সামনে অভিযোগ পত্রে থাকা স্বাক্ষী নবীন হোসেন (৩৫) কে হঠাৎ দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপানো শুরু করে। এ সময় নবীনের ভাই মনির হোসেন (৪৫) ও বৃদ্ধ পিতা মোঃ আনোয়ার হোসেন (৮৫) তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তারাও হামলার শিকার হয়। স্থানীয়ারা রক্তাক্ত জখম অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে রাজাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বৃদ্ধ পিতা আনোয়ার হোসেন কে ভর্তি রেখে নবীন ও মনির দুই সহোদরের অবস্থার অবনতি দেখে তাদের দ্রুত বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠায়। অপরদিকে ইভটিজিংয়ের প্রধান অভিযুক্ত জামাল হাওলাদার তার দলবল নিয়ে কেওতা মাদ্রাসার সামনে হামলার পর পরই ঐ শিক্ষার্থীর বাড়িতে গিয়েও হামলা চালায় এবং আসবাবপত্র ভাংচুর করে বলে জানা গেছে। শিক্ষার্থীর মা শেফালি বেগম জানায়, গত এপ্রিল মাসে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি সদস্য মোঃ শাহজাহান খান পুত্র খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ডিলার মোঃ মাহাদী হাসান খান খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর চাল আত্মসাত করে তার বাবার বাড়িতে লুকিয়ে রাখা চাল ভ্রাম্যমান আদালত উদ্ধার করে এবং মাহাদীকে ৬ মাসের সাজা প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সোহাগ হাওলাদার। এরপর থেকেই তাদের পরিবারের ওপর বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করে আসছে আওয়ামী লীগের ঐ নেতার লোকজন। ঘটনা প্রসঙ্গ আ্#৩৯;লীগ নেতা ও ইউপি সদস্য মোঃ শাহজাহান খান জানায়, নবীন ও তার পিতা আনোয়ার হোসেন লাঠি-সোটা নিয়ে জামালসহ তার লোকজনকে ধাওয়া করেন। পরে কি হয়েছে তা আমি জানিনা।

রাজাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ শহিদুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় সাইম, কামরুল ও জামালকে আটক করে আদলতে প্রেরন করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের ভিক্তিতে আলাদা দুইটি মামলার রেকর্ড করা হয়েছে।