রাজাপুরে ৫ বছরের শিশু সন্তানকে ফেলে টাকা ও স্বর্ণালঙ্কারসহ প্রবাসীর স্ত্রী উধাও

রেজাউল ইসলাম পলাশ: স্বামীরা থাকেন প্রবাসে। সেই সুবাধে পরকীয়া প্রেমে মগ্ন হয়ে পড়ে ঝালকাঠির রাজাপুরে ৫ বছরের কন্যা সন্তানকে ফেলে রেখে ১১ লক্ষ টাকা ও ১৩ ভরি স্বর্ণ অলঙ্কার নিয়ে উধাও হয়েছেন এক প্রবাসীর স্ত্রী। এ ঘটনায় সৌদি প্রবাসী মহিউদ্দিন হাওলাদার বাদী হয়ে রাজাপুর থানায় একটি সাধারন ডায়েরি করেন। এ দিকে শিশু কন্যাকে নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বাবা মহিউদ্দিন। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সদরের রাজাপুর মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক, জামাত নেতা মনোহরপুর গ্রামের ডেন্টিস্ট মনিরুজ্জামান তালুকদারের মেয়ে আলিমা জামান বানীর সঙ্গে পাশ্ববর্তী পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার ধাওয়া গ্রামের মৃত. আলী আজগড় আলী হাওলাদারের ছেলে সৌদি প্রবাসী মহিউদ্দিন হাওলাদারের সঙ্গে ২০১৫ সালে পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পরে স্বামী মহিউদ্দিন হাওলাদার চাকুরীর উদ্দেশ্যে সৌদি পারি জমানোর সময় স্ত্রী আলিমা জামান বানীকে শশুরের (মেয়ের বাবা) বাসায় রেখে যান। দীর্ঘ ছয় বছর সংসার করার পর প্রবাসী স্বামী মহিউদ্দিন গত ২৫ আগষ্ট দেশে আসলে ২৭ আগষ্ট সন্ধ্যায় উপজেলা শহরে বেড়াতে বের হবার কথা বলে ১১ লাখ টাকা ও ১৩ ভরি স্বর্ণ অলংকার নিয়ে উধাও হন বানী। তাকে না পেয়ে প্রবাসী মহিউদ্দিন ২৮ সেপ্টেম্বর রাজাপুর থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন। ডায়েরী নং ৯৭৯। এ ব্যপারে সৌদি প্রবাসী মহিউদ্দিন হাওলাদার প্রতিবেদকে বলেন, বিয়ের পর থেকেই নিয়ন্ত্রণের বাইরে ছিল গৃহবধু বানী। শিক্ষকের ঘরের মেয়ে হলেও বিয়ের পূর্বে একাধিক ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো বলে অভিযোগ করেন স্বামী মহিউদ্দিন। আমার প্রবাস জীবনে উপার্জিত সবকিছু নিয়ে আমায় নিস্ব করে পালিয়ে গেছে আমার স্ত্রী বানী, এখন আমার আত্বহত্যা ছাড়া আর কোন উপায় নাই। রাজাপুর থানার এসআই দিলীপ কুমার বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে এবং আমরা বিভিন্ন থানায় বেতার বার্তা দিয়েছি।

Previous articleঢামেকের ক্যান্টিনের পাশে মিললো নবজাতকের মাথা
Next articleসাঁথিয়ায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।