রায়পুরে তিন ভাই'র সংঘর্ষ-হামলা-ভাংচুর, আহত ৭

তাবারক হোসেন আজাদ: জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে তিন ভাই’র মধ্যে সংঘর্ষ, হামলা, বাসা ও মুরগির ফার্ম ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এসময় শিশু ও নারীসহ ৭ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) উপজেলার কেরোয়া ইউপির পুর্ব কেরোয়া গ্রামের ওয়াজ উদ্দিন পুল সংলগ্ন আবুল বাশার মাষ্টার বাড়ীতে।

আহত ব্যাক্তিরা হলেন, ওই গ্রামের স্কুল শিক্ষক মোঃ রফিক আহাম্মদের ছেলে বানিজ্য মন্ত্রনালয়ের সহকারি সচিব আক্তার হোসেন দুলাল, তার ছোট ভাই মোক্তার হোসেন টিপু, বেলায়েত হেসেন লিটন, তার স্ত্রী সাথী আক্তার ও শিশু সন্তান তাহসিন মাহমুদ।

ক্ষতিগ্রস্থ লিটন জানান, তার মা মারা যাওয়ার পর দীর্ঘদিন জমি নিয়ে তাদের ভাইদের মধ্যে বিবাদ চলছিলো। তার অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক পিতা দ্বিতীয় বিয়ে করে লক্ষ্মীপুর শহরে বসবাস করছিলেন। লিটন ১০ বছর আগে প্রবাস থেকে দেশে এসে অনেকদিন বেকার থাকার পর বাড়ীর সামনে মুরগির খামার দেন। এটা সহ্য করতে না পেরে তার ভাইয়েরা বিভিন্ন ঝামেলা করে আসছে। অবশেষে শনিবার সকালে স্থানীয় মেম্বারকে নিয়ে এসে তার ভাই সচিব আক্তার হোসেন ও মোক্তার হোসেন লোকজন নিয়ে এসে বসতবাড়ী, মুরগির খামার ও হ্যাচারি ভাংচুর চালিয়ে এবং আলমারিতে থাকা ৯০ হাজার টাকা লুটপাট করে নিয়ে যায়। এতে তার পাঁচ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়। এসময় বাঁধা দিলে তার স্ত্রী ও সন্তানকেও পিটিয়ে আহত করে।

এঘটনায় বানিজ্য মন্ত্রনালয়ের সহকারি সচিব আক্তার হোসেন বলেন, তার ভাই লিটন খুবই লুভি ও খারাপ প্রকৃতির মানুষ। তার হামলার ভয়ে গত ১০ বছর তিনি ও তাদের অবসরপ্রাপ্ত অসুস্থ স্কুল শিক্ষক পিতা বাড়ীতে আসতে পারছেনা। লিটন এককভাবে পিতা-মাতার সকল সম্পদ ভোগ করে আসছে। এগুলোর প্রতিবাদ করতে আসলেই হামলা ও ভাংচুর চালায়। শুক্রবার ছুটিতে বাড়ীতে আসলে সে ইউপি সদস্যের সামনে আমাদের উপর হামলা চালায়। নিরুপায় হয়ে জনপ্রতিনিধি ও থানা পুলিশের সহযোগিতা নিতে হয়েছে।

রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, জমি নিয়ে বিরোধে তিন ভাই’র মধ্যে মারামারি ও ভাংচুর হয়েছে জানতে পেরেছি। লিখিত অভিযোগ দেওয়া হলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।