তাবারক হোসেন আজাদ: লক্ষ্মীপুর-২ আসনে (রায়পুর ও সদর একাংশ) উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জেলার সাধারন সম্পাদক এডঃ নুর উদ্দীন চৌধুরী নয়নকে বরণ করতে গাড়িবহর নিয়ে শোডাউন করেন দলীয় নেতা-কর্মীরা। মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) ১১টার দিকে রায়পুর-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের বর্ডারবাজার এলাকায় রায়পুরসহ জেলার চার উপজেলার প্রায় সহস্রাধিক নেতা-কর্মী বরন করেন। লক্ষ্মীপুর-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুর উদ্দিন চৌধুরিকে বরণ করতে গাড়িবহর নিয়ে শোডাউন করেন দলীয় নেতা-কর্মীরা।

এসময় ২০ মিনিট রায়পুর-লক্ষ্মীপুর ও চাঁদপুর আঞ্চরিক মহাসড়কের তিন কিঃমিঃ যানজট সৃষ্ট হয়। পরে থানা পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশের সহযোগিতায় যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

দুপুর সাড়ে ১২ টায় শোডাউন শেষে রায়পুর ট্রাফিক মোড়ে ও দালালবাজার স্থানে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী এডঃ নয়ন। তিনি লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক।

এডভোকেট নয়ন মনোনয়ন পাওয়ার পর মঙ্গলবার এলাকায় ফেরেন। এ কারণে সংবর্ধণা অনুষ্ঠান আয়োজন করে নেতা–কর্মীরা। আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে বিশাল গাড়িবহর নিয়ে বরণ করা হয়। কিন্তু এসংবাদ জানার পরও দায়িত্বপ্রাপ্ত নোয়াখালী, চাঁদপুর ও লক্ষ্মীপুর জেলার রিটার্নিং কর্মকর্তারা ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার সরেজমিনে দেখা যায়, সকাল ৮টা থেকে রায়পুরের ১০ ইউনিয়নসহ জেলার বিভিন্ন এলাকার নেতা-কর্মীরা গাড়ির বহর নিয়ে রায়পুর ট্রাফিক মোড়ের সামনে এলাকায় জমায়েত হতে থাকেন। সেখানে শতাধিক জিপ ও তিন শতাধিক মোটরসাইকেল জমায়েত হওয়ার পর রায়পুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ ও পৌর আ’লীগের আহবায়ক কাজি জামশেদ কবির বাকি বিল্লাহ’র নেতৃত্বে গাড়ির বহরটি বর্ডারবাজার এলাকায় প্রার্থীকে বরন করে ট্রাফিক মোড়ে আয়োজিত সমাবেশের উদ্দেশে রওনা দেয়।

এদিকে ঢাকা ও রায়পুরসহ জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা অন্তত চার শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে ট্রাফিক মোড়ে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ বলেন, প্রার্থীকে বরন করতে তিনি তার ফেইসবুক ওয়ালে বর্ডারের থাকার নির্দেশনা দেয়ায় উচ্ছ্বসিত হয়ে নেতা-কর্মীরা নিজেদের পকেটের টাকা খরচ করে গাড়িবহর নিয়ে নৌকার প্রার্থী এডভোকেট নয়ন সাহেবকে বরণ করেছেন।

নির্বাচনী বিধিমালায় উল্লেখ আছে, কোনো নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল কিংবা তার মনোনীত বা স্বতন্ত্র প্রার্থী কিংবা তাদের পক্ষে অন্য কোনো ব্যক্তি ট্রাক, বাস, মোটরসাইকেল, নৌ-যান, ট্রেন কিংবা অন্য কোনো যান্ত্রিক যানবাহন সহকারে মিছিল বের করতে পারবে না। কিংবা কোনো শোডাউন করতে পারবে না। এর ব্যত্যয় হলে জাতীয় সংসদ নির্বাচন আচরণবিধিমালা লঙ্ঘন হবে।

এ ব্যাপারে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাকে বলা হবে।

জানতে চাইলে রায়পুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা দিপক বিশ্বাস বলেন, আচরণবিধি লঙ্ঘন হচ্ছে কি না, তা দেখার জন্য নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। যদি লঙ্ঘন হয় ম্যাজিষ্ট্রেট ব্যবস্থা নিবেন।

উল্লেখ্য-গত ৩ মার্চ ওই আসনে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ১৮ মার্চ। বাছাই হবে ১৯ মার্চ ও প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৪ মার্চ। আগামী ১১ এপ্রিল লক্ষ্মীপুর-২ আসনে (রায়পুর) নির্বাচন হবে।

Previous articleপাঁচবিবিতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ৬৩ বছরের পুরাতন মসজিদ ভাঙ্গার অভিযোগ
Next articleরাজারহাটে বসতবাড়িতে অগ্নিসংযোগ-লুটপাট ও হামলায় আহত ৫
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।