বাংলাদেশ প্রতিবেদক: রাজশাহীর পুঠিয়া পৌরসভার মেয়র আল মামুন খানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে রোববার (১১ এপ্রিল) রাতে পুঠিয়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন এক সিনিয়র নার্স। ওই নার্স পুঠিয়ার একটি ক্লিনিকে কাজ করতেন।

ভুক্তভোগী নার্স দুর্গাপুর থানা এলাকার বাসিন্দা। বর্তমানে তিনি ঢাকার জাতীয় নাক কান গলা ইন্সটিটিউটে কর্মরত।

তার দাবি, ২০১৯ সালে তিনি পুঠিয়ায় একটি ক্লিনিকে কর্মরত ছিলেন। ওই সময় মেয়র মামুনের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হয়। সম্প্রতি তিনি বিয়ের জন্য মেয়র মামুনকে চাপ দেন। কিন্তু তিনি এড়িয়ে যাচ্ছিলেন।

নিরুপায় হয়ে রোববার দুপুরে বিয়ের দাবিতে তিনি মেয়র মামুনের পুঠিয়া সদরের চেম্বারে হাজির হন। কিন্তু তাকে নির্যাতন করে বের করে দেওয়া হয় বলে জানান তিনি।

পুঠিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সোহরাওয়ার্দী জানান, পরে খবর পেয়ে পুলিশ ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে থানায় নেয়। রাতে তিনি বাদী হয়ে মেয়রের নামে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে, অভিযোগের বিষয়ে জানতে কয়েকবার চেষ্টা করেও মেয়র আল মামুন খানের মোবাইল ফোনে সংযোগ পাওয়া যায়নি।

গত ২৮ ডিসেম্বর সর্বশেষ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী রবিউল ইসলাম রবিকে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন আল মামুন খান। এর আগের নির্বাচনেও জয় পান মামুন খান। কিন্তু আইনি লড়াইয়ে চেয়ার হারান তিনি। পরে মেয়রের চেয়ারে আসেন যুবলীগ নেতা রবিউল ইসলাম রবি।

Previous articleবিশ্বশান্তি সুসংহত করতে বাংলাদেশ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ: প্রধানমন্ত্রী
Next articleস্বাধীনতাবিরোধী শক্তি বিএনপি-জামাত-হেফাজত: রেলমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।