তাবারক হোসেন আজাদ: স্থানীয় লোকজন অনেক দিন ধরে বিভিন্ন দফতরে ধর্ণা দেয়ার পরও লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার সোলাখালী ব্রীজ সংলগ্ন ডাকাতিয়া নদীর উপর সেতু নির্মাণ হয়নি। অবশেষে স্বেচ্ছাশ্রমে সেখানে বাঁশ ও কাঠ দিয়ে প্রায় একশ ফুট দৈর্ঘ্যের সাঁকো নির্মাণ করেছেন নদীর পাশের দুই গ্রামের বাসিন্দারা। এতে কেউ দিয়েছেন বাঁশ, কেউ দিয়েছেন টাকা আর কেউ দিয়েছেন স্বেচ্ছাশ্রম- এভাবেই সবাই মিলে স্বেচ্ছাশ্রমে সাঁকোটি নির্মাণ করেছেন। এ বাঁশের সাঁকোটি হওয়ায় চরমোহনা ও দেবিপুর ছাড়াও আশপাশের কয়েকটি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার মানুষের চলাচলের পথ উন্মুক্ত হল।

জানা যায়, চরমোহনা ও দেবিপুর গ্রামের বাসিন্দারা এ পথে নিয়মিত চলাচল করেন। এ পথে গ্রামের শিক্ষার্থীরা দেবিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শায়েস্তানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, জনকল্যাণ বহুমুখী হাইস্কুল ও সায়েস্তানগর ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা-সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যায়। গ্রামের বাসিন্দারা চালতাতুলি ও নতুন বাজারে ও মিতালীবাজারে কেনাবেচা করতে যান। কিন্তু এখানে সেতু না থাকায় তারা বর্ষাকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কলার ভেলা বা একটি বাঁশের সঙ্গে আরেকটি বাঁশ বেঁধে তৈরি বাঁশের সাঁকো (আড়) দিয়ে নদী পারাপার হন। এতে কৃষিপণ্যসহ অন্যান্য মালামাল পরিবহন করতে না পারার পাশাপাশি চলাচলে চরম ভোগান্তির শিকার হন তারা।

এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যানসহ বিভিন দফতরে যোগাযোগ করেও কাজ হয়নি। অবশেষে দু’গ্রামের লোকজন ডাকাতিয়া নদী পারাপারে বাঁশ ও কাঠের তৈরির সাঁকো নির্মাণের উদ্যোগ নেন গ্রাম।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) সরজমিন দেখা যায়, সম্প্রতি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট মারুফ বিন জাকারিয়ার নেতৃত্বে প্রায় শতাধিক লোক নদীর পাড়ে জড়ো হয়েছেন। সাঁকো নির্মাণকে কেন্দ্র করে সেখানে যেন উৎসব চলছে। তাদের কেউ কেউ বাঁশ কাটছেন।। কেউ কাঠের খুঁটি করছেন।আর কেউ পানিতে নেমে বাঁশের খুঁটির উপর কাঠ ও সিমেন্টের পিলারে পেরেক মেরে তিন ফুট প্রস্থ ও একশ’ ফুট দির্ঘ বিশিষ্ট সাঁকো নির্মাণ করছেন। নারীরা সহ বয়স্করা বসে থেকে তরুনদের উৎসাহ দিচ্ছেন।

চরমোহনা গ্রামের বৃদ্ধ জয়নাল মিয়া জানান, আমাদের ছেলেমেয়েরা নদীর ওপারের স্কুল-কলেজে লেখাপড়া করে। কলার ভেলায় বা অনেক দূর দিয়ে ঘুরে তাদের যেতে হয়। এতে অনেক সময়েই দুর্ঘটনা ঘটার শঙ্কায় থাকতে হয়। তাই গ্রামের লোকজন সাঁকোটি নির্মাণ করেছেন।

দেবিপুর গ্রামের মাইনুউদ্দিন মৈশাল বলেন, ইউপি চেয়ারম্যানসহ এখানে একটি সেতুর জন্য বিভিন্নজনের কাছে ঘুরেছি। কিন্তু কাজ হয়নি। আপাতত সাঁকোটি নির্মাণ করে চলাচল ব্যবস্থা ঠিক রাখা হচ্ছে। এখানে সরকারিভাবে একটি সেতু নির্মাণের দাবি জানাচ্ছি।

রায়পুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এডঃ মারুফ বিন জাকারিয়া জানান, নীজেসহ সমাজ সেবক নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা গ্রুপ, আলহ্বাজ তাহের জাবেরি, গাজি মাহমুদ কামাল, ইউপি চেয়ারম্যান সফিউল আজম চৌধুরির ও গ্রামবাসীর সহযোগিতায় ডাকাতিয়া নদীর উপর বাঁশ ও কাঠের তৈরি সাঁকো নির্মাণ হওয়ায় গ্রামবাসীর চলাচলে সুবিধা হয়েছে। তবে স্থায়ীভাবে একটি সেতু নির্মাণের জন্য এমপিসহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

Previous articleওবায়দুল কাদেরকে কোম্পানীগঞ্জে ঢুকতে না দেওয়ার ঘোষণা কাদের মির্জার
Next articleতাহিরপুর সীমান্তে ভারতীয় মদের চালান আটক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।