বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মুলাদীতে বিধবা ভাতা দেওয়ার নামে এক হতদরিদ্র নারীর ভিক্ষার টাকা আতœসাত করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার কাজিরচর ইউনিয়নের চরকমিশনার (কাঠেরচর) গ্রামের মৃত খাদেম খানের পুত্র আঃ রব খান ওই গ্রামের হতদরিদ্র তহমিনা বেগমের ২ হাজার টাকা আতœসাত করেছেন বলে ওই নারী অভিযোগ করেছেন। নিঃসন্তান তহমিনা বেগম (৬৫) কাঠেরচর গ্রামের আব্দুল মন্নান হাওলাদারের স্ত্রী। প্রায় ৩ বছর আগে তার স্বামী মারা যান। তহমিনা বেগম জানান স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে বিধবা ভাতা পাওয়ার আশায় এলাকার মেম্বার ও নেতাদের পিছনে ঘুরেছি। কিন্তু কেউ বিধবা ভাতা কিংবা বয়স্ক ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেয়নি। এলাকার মাতবর ও একটি রাজনৈতিক দলের ওয়ার্ড সভাপতি আঃ রব খান বিধবা ভাতা দেওয়ার জন্য তার কাছে ৩ হাজার টাকা দাবী করেন। বিগত ঈদ- উল আযহার দিন বিভিন্ন বাড়ি ঘুরে তহমিনা বেগম ৪ কেজি গোরুর মাংস পান। মাংস বিক্রি করে ২ হাজার টাকা তিনি আঃ রব খানকে দেন। টাকা নেওয়ার ১০ মাস অতিবাহিত হলেও আঃ রব খান ওই হতদরিদ্র নারীকে বিধবা ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা করে দিতে পারেননি। কিছুদিন আগে অসহায় নারী তার টাকা ফেরৎ চাইলে আঃ রব খান ফেরত দিতে অস্বীকৃতি জানান। পরে তহমিনা বেগম বিষয়টি নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে আসলে বিষয়টি জানাজানি হয়ে যায়। এব্যাপারে কাজিরচর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মন্টু বিশ্বাস জানান ২০২০ সালের মার্চ মাসে বিধবা ও বয়স্ক ভাতা প্রদানের জন্য ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ডে মাইকিং করা হয়েছে এবং ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তার মাধ্যমে অনলাইনে আবেদনের জন্য বলা হয়েছিলো। কিন্তু তহমিনা বেগম স্থানীয় এক প্রতারককে টাকা দিয়ে নিশ্চিন্তে থাকায় বিধবা ভাতার জন্য অনলাইনে আবেদন করেননি। বিষয়টি জানার পর তাকে বিধবা ভাতা দেওয়ার জন্য আবেদনের প্রস্তুতি চলছে। এব্যাপারে আঃ রব খানের সাথে মুঠোফোন ০১৭০৬১৪৮১১৭ নাম্বারে বার বার যোগোযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

Previous articleবাউফলে ইভটিজিংয়ে বাধা দেয়ায় চাচাকে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙ্গে দিল দুর্বৃত্তরা
Next articleঈশ্বরদীতে অর্ধশতাধিক মানুষ বোঝাই ট্রাক আটক
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।