কামাল সিদ্দিকী: পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প এলাকায় করোনার নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষার জন্য সরকারের অনুমতিপ্রাপ্ত বেসরকারি ১১টি প্রতিষ্ঠানের বুথে অসম প্রতিযোগিতা আর নানা অনিয়মের অভিযোগে বন্ধ করে দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

জানা যায়, চলতি মাসের ১৮ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডা. মোঃ ফরিদ হোসেন মিঞা (হাসপাতাল ও ক্লিনিকসমুহ) স্বাক্ষরিত পাবনা সিভিল সার্জন বরাবর পাঠানো এক চিঠিতে জানানো হয়, ঢাকার ডি.এন.এ সল্যুশনসহ আরটি- পিসিআর পরীক্ষার অনুমোদনপ্রাপ্ত ও পাবনা সিভিল সার্জনের শর্তসাপেক্ষ অনুমতি নিয়ে বেশ কিছু বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প এলাকায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় নিয়ে আরটি-পিসিআরে পরীক্ষা করছে। এতে করে নমুনা সংগ্রহকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মধ্যে অসম প্রতিযোগিতাসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এরই আলোকে রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্র থেকে ঢাকা মহানগরী ও দেশের অন্যান্য জেলায় অবস্থিত বেসরকারি আরটি-পিসিআর পরীক্ষার জন্য বিভিন্ন বুথের অনুমতি বাতিল ঘোষণা করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। পাবনার সিভিল সার্জন মনিস্ধসঢ়;রর চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী যারা রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রে বেসরকারিভাবে ঢাকার ডিএনএ সল্যুশনসহ আরটি-পিসিআর পরীক্ষার অনুমতি নিয়ে করোনার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করে আসছিল এমন সব প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শুধু যেসব প্রতিষ্ঠানের করোনা পরীক্ষার ল্যাবসহ বুথ রয়েছে, সেসব প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম চলবে। বন্ধ করে দেওয়া ১১টি প্রতিষ্ঠানের কোনোটিরই নিজস্ব ল্যাব নেই। তারা নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকা থেকে পরীক্ষা করিয়ে আনে। এক্ষেত্রে সঠিক পরীক্ষা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠান করোনা পরীক্ষার নামে অসম প্রতিযোগিতায় লিপ্ত ছিল। তাই ল্যাব ছাড়া সব প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্রে বেসরকারিভাবে স্থাপিত ফেমাস স্পেশালাইজড হাসপাতালের পরিচালক আব্দুল্লাহ খান বলেন, গুণগত মান ঠিক রেখে আমরাই প্রথমে বেসরকারিভাবে ঢাকাসহ এ রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্প এলাকায় করোনার নমুনা সংগ্রহসহ পরীক্ষার কাজ করে আসছি। আমরা নিয়ম অনুসরণ করে বিশেষ এলাকার ভেতরে এ নমুনা সংগ্রহ করে থাকি। এখানে সব প্রশাসনিক কর্মকর্তা স্বাস্থ্য বিভাগের দায়িত্বরত সবাই দেখভাল করেছে। আমরা কোনো অনিয়ম বা ভুল তথ্য দেই না। এদিকে পাবনা মেডিকেল কলেজে একটি আরটি পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হলেও অজ্ঞাত কারনে সেটা চালু করা হচ্ছে না। স্বাস্থ্য বিভাগের একাধিক সুত্র নাম

প্রকাশ না করার শর্তে জানান, ল্যাব স্থাপনসহ সকল কাজ সম্পন্ন হলেও মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. বুলবুল হাসান এর নানা অজুহাত আর গাফিলতরি কারনেই ল্যাবটি এখনো চালু হয়নি। এ বিষয়ে তার বক্তব্য জানতে আজ মঙ্গল সকালে কলেজে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি।

Previous articleপাবনায় করোনায় আরও ১৪ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৪৫
Next articleবিয়ে করতে গিয়ে ব্যাংক কর্মকর্তা কারাগারে
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।