বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঝিনাইদহে ২২ বছরের এক তালাক প্রাপ্ত নারীকে ইয়াবা সেবন করিয়ে ধর্ষণ ও আপত্তিকর ভিডিও ধারণ করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী তরুণীর মা পাতা খাতুন বৃহস্পতিবার দুপুরে ঝিনাইদহ সদর থানায় লাইকি মডেলসহ দুইজনের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ ধর্ষকদের গ্রেফতার করতে অভিযান চালাচ্ছে। এর আগে ভুক্তভোগী তরুণীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য বুধবার দুপুরে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভুক্তভোগী তরুণীর বাড়ি পৌর এলাকার কানপুর মধ্যপাড়া গ্রামে।

ওই তরুণী অভিযোগ করেন, তার বান্ধবী সুমি নামে এক প্রবাসির স্ত্রী মঙ্গলবার বিকালে তাকে বিউটি পার্লারে নিয়ে যাওয়ার নাম করে শহরের পানি উন্নয়ন বোর্ডের পেছনে জনৈক বিডিআর মিলনের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে আগে থেকে উপস্থিত ছিল আদর্শপাড়ার তৌফিকুর রহমান টুটুলের ছেলে আশিকুর রহমান রোমেল নামে এক লাইকি মডেল।

ঘটনায় ভুক্তভোগীর ভাষ্যমতে, ওই বাসায় নেওয়ার পর আগে আমাকে জোরপূর্বক ইয়াবা ও গাঁজা সেবন করায় বিডিআর মিলন ও রোমেল। এরপর রাতভর ধর্ষণ করে তারা ওই সময় বান্ধবী সুমিও একই ঘরে উপস্থিত ছিল।

তবে তাকেও ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা তা নির্যাতিত মেয়েটি বলতে পারেনি। সুমির স্বামী প্রবাসী হওয়ায় সেও বেপরোয়া জীবন যাপনে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে।

হাসপাতাল চত্বরে ভুক্তভোগী তরুণীর মা জানান, চক্রটি ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে তার মেয়ের কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। বুধবার সকালে মেয়ে বাড়িতে আসলে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

তিনি জানান, আমার স্বামী বেঁচে নেই। মেয়েকে শহরের পবহাটী গ্রামে বিয়ে দিয়েছিলাম। বিচ্ছেদ হওয়ার পর এখন আমার কাছেই থাকে। কি করবো ভেবে না পেয়ে দুপুরে অসুস্থ মেয়েকে হাসপাতালে ভর্তি করেছি।

ঝিনাইদহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল বাসার জানান, গোটা চক্র অন্ধকার জগতে চলাফেরায় অভ্যস্ত। এর আগে সুমি জনৈক প্রদ্যুৎ নামে এক যুবকের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় পুলিশের হাতে আটক হয়।

এছাড়া অভিযুক্ত ধর্ষক আশিকুর রহমান রোমেলও গত ৩ জুন শহরের মহিলা কলেজ পাড়ার একটি বাসা থেকে নারী টিকটকার তুলির সাথে আপত্তিকর অবস্থায় পুলিশের হাতে ধরা পড়ে।

অন্যদিকে বিডিআর মিলন কয়েকদিন আগে শহরের শামীমা ক্লিনিকের সামনে থেকে ইয়াবাসহ আটক হয়। ওই সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ২৩ মাসের জেল দেয়। এ সংবাদ জানার পর তার মুক্তিযোদ্ধা পিতা হৃদরোগে আক্রান্ত মারা যান। জেল থেকে ছাড়া পেয়ে মিলন আবার অন্ধকার জগতে পা রাখে।

ঝিনাইদহ ডিএসবির একটি সূত্র জানায়, শহরে সুন্দরী নারীদের ভয়ংকর মিশন শুরু হয়েছে। ৮/১০ জন যুবতী নিয়মিত যৌন কর্ম ও মাদকে আসক্ত। এদের মধ্যে অনেক অপ্রাপ্ত বয়সের মেয়েরাও আছে। এখন এরা বিমানে চলাফেরা করে। এমন বেশ কিছু যুবতীকে তারা শনাক্ত করেছে।

এসব নারীরা ঝিনাইদহ শহরের পাশাপাশি নিয়মিত ঢাকায় দেহ ব্যবসার জন্য যাতায়াত করে থাকে বলে পুলিশের কাছে তথ্য রয়েছে। এদের সহায়তা করার নামে নিয়মিত যৌন কার্য চালিয়ে যাচ্ছে মিলন ও রোমেলসহ বেশ কিছু লম্পট যুবক।

এই চক্রটি নারীদের ঢাকায় পাঠাচ্ছে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে। যারা কথা শুনছে না তাদের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করে টাকা দাবি ও দেহ ব্যবসা করাতে বাধ্য করানো হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে সদর থানার ওসি এমদাদুল হক জানান, খবর শুনার পর পুলিশ কর্মকর্তা এসআই ব্রজনাথ কুমারকে হাসপাতালে ধর্ষিতার কাছে পাঠানো হয়। এরপর ভিকটিমের বক্তব্য শুনে প্রকৃত ঘটনা তদন্ত করা হয়েছে। সেই রিপোর্ট অনুযায়ী ধর্ষণ মামলা নেওয়া হয়েছে। আসামীদেরকে গ্রেফতার করার জন্য অভিযান চলছে। আশা করি খুব দ্রুত পুলিশ তাদেরকে ধরতে সক্ষম হবে।

জেলা যুবলীগের সদস্য পদবী ব্যবহার করে ঝিনাইদহ শহরের ছাগল হাটের পাশে ১৫ আগস্ট উপলক্ষে বিল বোর্ড টাঙিয়েছেন লাইকি মডেল রোমেল। সেই বিলবোর্ডে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ স্থানীয় নেতাকর্মীদের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আওয়ামীলীগ ও জেলা যুবলীগ নেতা-কর্মীদের মধ্যে তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে।

ঝিনাইদহ জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবাহক ও সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রাশীদুর রহমান রাসেল জানান, এই আশিকুর রহমান রোমেল যুবলীগের কোন ইউনিটের প্রাথমিক সদস্যও নয়। সে কিভাবে এই ব্যানার-বিলবোর্ড লাগালো আমরা জানিনা।

Previous articleচাকরিপ্রার্থীদের বয়সে ছাড় দেওয়ার প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে
Next articleবাসে-ট্রেনে গাদাগাদি করে আসলে চলবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।