বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মুলাদীতে সফিপুর নূর এ তাজ দাখিল মাদ্রাসার নির্মানাধীন ভবনের দেরটন রড চুরির অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার সকালে মাদরাসার সামনে থেকে চুরির ঘটনা ঘটে।

এছাড়া ওই ভবনের বালু ও ইট চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ঠিকাদার। এঘটনায় ঠিকাদার মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন। জানা গেছে, উপজেলার সফিপুর ইউনিয়নের মুন্সীরহাট নূর এ তাজ দাখিল মাদরাসায় সরকারি ভাবে দ্বিতল ভবন বরাদ্দ হয়। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ শুরু করেন। ভবনের কাজের জন্য মালামাল মাদরাসার মাঠ ও পাশ্ববর্তী ভবনে রাখা হয়। ঠিকাদার ফিরোজ আলম জানান, রাজমিস্ত্রীরা করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় তাদের ছুটি দেওয়া হয়। তাই ভবন নির্মাণের কাজ সাময়িক বন্ধ আছে। শুক্রবার সকালে কে বা কাহারা মাদরাসার সামনে থাকা প্রায় দের টন রড চুরি করে নেয়। স্থানীয় লোকজন পাশ্ববর্তী বানীমর্দন বাজারের ব্যবসায়ী আঃ রশিদ খানের দোকানে সেই রড দেখতে পেয়ে ঠিকাদারকে সংবাদ দেয়। ব্যবসায়ী আঃ রশিদ খান জানান সফিপুর ইউনিয়নের চরসফিপুর গ্রামের হিরণ মুন্সীর ছেলে নয়ন মুন্সী ও তার লোকজনের কাছ থেকে তিনি ৮০০ কেজি রড কিনেছেন। তবে এগুলো চোরাই রড কিনা তা তাঁর জানা ছিলো না। সাইট ঠিকাদার জুয়েল জানান, মাদরাসার ভবন নির্মাণের জন্য ২৩ বা-েল রড রাখা ছিলো। রডগুলো ঝালাই ও শিকল দিয়ে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছিলো। তালা ভেঙ্গে রড চুরি বিষয়টি হতাশাজনক। এঘটনায় আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নয়ন মুন্সীর মাদরাসার রড চুরির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি বাড়িতে কাজ করার জন্য রড কিনেছিলাম। কাজে লাগেনি তাই বিক্রি করে দিয়েছি।

Previous articleমুলাদীতে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে টাকা ছিনতাই
Next articleচাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো জমজ দু’বোনের বাল্যবিয়ে
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।