ওসমান গনি: চান্দিনায় ১৪ বছরের এক কিশোরী ধর্ষিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনা ঘটেছে ৩ দিন আগে। এ ঘটনা চান্দিনা থানার এক এস.আই (উপ-পরিদর্শক) কে জানিয়েছেন স্থানীয় এক মাতুব্বুর। সামাজিকভাবে বিষয়টি মীমাংসা করার কথা জানালে ওই পুলিশ অফিসারও বিষয়টিকে না জানার মত ভান করেছেন।

ঘটনার তিন দিন পর আজ শুক্রবার সামাজিকভাবে বিষয়টি মীমাংসা হয়েছে। ধর্ষককে দেড় লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

ধর্ষণের ঘটনা সামাজিকভাবে ধামাচাপ দেওয়ার নিয়ম আছে কিনা জানতে চাইলে চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ আরিফুর রহমান জানিয়েছেন- ‘নারী ও শিশু সংক্রান্ত এ ধরণের কোন ঘটনারই সামাজিকভাবে নিষ্পত্তি কিংবা সালিশী বৈঠকে সমাধানের কোন বিধান নেই।’

ওই ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে এমন কোন অভিযোগ আসেনি। তাই বিষয়টি জানা নেই আমার’।

সালিশী বৈঠকের প্রধান সমন্বয়ক এলডিপি নেতা আমাকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, ‘ আমরা সামাজিকভাবে এটা শেষ করে দিয়েছি। ছেলেটাকে দেড় লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। টাকা এখনো মেয়ের পরিবার হাতে পায়নি’

জানতে চাইলে ওই এলাকার জনপ্রতিনিধি জানান, ‘আমি এ ঘটনা শুনেছি অন্যের কাছ থেকে। তবে আমার কাছে কেউ আসেনি। আর সালিশী বৈঠকের কথা আমি জানি না।’
(ভিকটিম মেয়েটি এতিম। বাবা মা নেই। চাচা দেখাশুনা করেন। চাচাকে ঐ মাতুব্বুর দেড় লক্ষ টাকা পাইয়ে দিবে বলে আশ্বস্ত করেছেন। এমন ঘটনায় চাচাও চুপ!)

Previous articleউল্লাপাড়ায় নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা
Next articleরাজারহাটে জেলা পুলিশের উদ্যোগে ঘর পাচ্ছেন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী খলিল
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।