বাংলাদেশ প্রতিবেদক: রাজধানীর তেজগাঁওয়ে তেজতুরী বাজারের দগ্ধ শিক্ষার্থী জিতু (২৮) চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউতে) মারা গেছেন।

আজ শনিবার সকালে তিনি মারা যান। বার্নের আবাসিক সার্জন এস এম আইয়ুব হোসাইন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, জিতুর শরীরের ৬৫ শতাংশ দগ্ধ ছিল।

এর আগে শুক্রবার রাতে তেজগাঁও থানাধীন তেজতুরী বাজার এলাকার একটি ছয়তলা ভবনের তিনতলায় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় দুই শিক্ষার্থী দগ্ধ হয়েছিলেন।
দগ্ধ দুইজন হলেন- ইয়াসিন তালুকদার (৩১) ও জিতু (২৮)। তাদের দুজনকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারির ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয় ।

তেজগাঁও থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মান্নান জানান, রাত ৯টার দিকে ২৭/এ পূর্ব তেজতুরী বাজার ওই ছয়তলা ভবনের তৃতীয় তলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে পাই দুই জন দগ্ধ হয়েছে। দগ্ধ অবস্থায় তাদের দুজনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়।

তিনি আরও জানান, আমরা প্রাথমিকভাবে দুই শিক্ষার্থীর নাম জানতে পেরেছি। দুজন হলেন- ইয়াসিন তালুকদার, তার গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরে ও অপরজন জিতু (২৮)।
শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন এস এম আইয়ুব হুসাইন জানান, তেজগাঁও তেজতুরী বাজার এলাকা থেকে দুইজন দগ্ধ হয়ে এসেছে। তাদের দুইজনকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউতে) ভর্তি করা হয়। দুই জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক, ইয়াসিন তালুকদারের শরীরে ৫০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে ও জিতু শরীরে ৬৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তাদের দুজনেরই শ্বাসনালী দগ্ধ হয়েছে।

এদিকে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে সিটিটিসির উপ-পুলিশ কমিশনার আব্দুল মান্নান জানান, তেজতুরী বাজার এলাকার একটি বাসায় ঘটে যাওয়া বিস্ফোরণে বিস্ফোরক দ্রব্য জাতীয় কিছুর সন্ধান পাওয়া যায়নি। বিস্ফোরণের ঘটনাটি অন্য কোনো কারণে হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে। আহতদের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।

Previous articleচট্টগ্রাম বন্দরে বিদেশি জাহাজের ২ নাবিকের আকস্মিক মৃত্যু
Next articleআপনাদের দিন ঘনিয়ে এসেছে, দিন শেষ: সরকারের উদ্দেশ্যে ফখরুল
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।