বাংলাদেশ প্রতিবেদক: মায়ের অংশের জমি জবর দখল করতে গিয়ে মা’কেই পিটিয়ে গুরুতর আহত করে পা ভেঙ্গে দিয়েছে এক পাষণ্ড সন্তান। পেশায় তিনি আবার একজন পুরোহিত। যারা সাধারণ মানুষদের ন্যায়-অন্যায় জ্ঞান দান করেন। সেই ব্রাহ্মণ পরিবারেই এমন ঘৃণ্য ঘটনা ঘটায় জেলা জুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বেগুনবাড়ী ইউনিয়নের পাইকপাড়া নামক এলাকায়। এ ঘটনায় আহত মা শান্তি চক্রবর্তী ছেলে মনি চক্রবর্তীসহ পাঁচজনের নামে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ৮ বছর আগে শান্তি চক্রবর্তীর ছেলে কেশব চক্রবর্তী তার পৈত্রিক সম্পত্তির সাড়ে তিন বিঘা জমি মায়ের নামে দানপত্র করে দেন। সম্প্রতি জমির ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে বড় ছেলে মনি চক্রবর্তী ও সৎ ছেলে বিনয় চক্রবর্তীর সাথে তাদের মায়ের ঝগড়া-বিবাদ ঘটে। এ অবস্থায় গত ১৬ নভেম্বর দুপুরে সেই জমি জবর দখলে নেয়ার উদ্দেশে জমিতে ট্রাক্টর দিয়ে হাল চাষ করতে যান তারা। ঘটনা জানতে পেরে মা শান্তি চক্রবর্তী ঘটনাস্থলে গিয়ে এর প্রতিবাদ করলে মনি চক্রবর্তী ও তার স্ত্রী বন্দনা চক্রবর্তী, সৎ ছেলে বিনয় চক্রবর্তী, বিনয় চক্রবর্তীর ছেলে উৎসব চক্রবর্তী ও স্ত্রী চঞ্চলা চক্রবর্তী লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে তার উপর হামলা করেন।

একপর্যায়ে তাদের মারপিটে পা ভেঙ্গে মাটিতে পড়ে যান শান্তি চক্রবর্তী। এ সময় তার চিৎকারে অপর ছেলে লক্ষণ চক্রবর্তী, বৌমা অঞ্জলী চক্রবর্তী ও নাতি অনিক চক্রবর্তী তাকে বাঁচাতে গেলে তাদেরকেও পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন মনি চক্রবর্তী ও বিনয় চক্রবর্তী। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন এবং আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়া হয়।

এ ঘটনায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মা শান্তি চক্রবর্তী ছেলের এ ঘৃণ্যকাজের যথোপযুক্ত শাস্তি দাবি করেন। তিনি জানান, আমরা ব্রাহ্মণ জাতি, আমরা মানুষদের ন্যায়-অন্যায় জ্ঞান দান করি আর আমারই ছেলে সামান্য জমির লোভে লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে আমার পা ভেঙ্গে দিয়েছে। মানুষ তো আমাদের ছিছি করছে। আমি ন্যায় বিচারের আশা করছি, আশা করি আমি ন্যায় বিচার পাবো।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মনি চক্রবর্তীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমরা ঠাকুর হইছি এজন্য মারামারি করতে পারবো না, এটা কেমন কথা, আমাদের ভগবান শ্রীকৃষ্ণও কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধের ময়দানে ছিলেন। আমার জমির সমস্যা, আমি দুই বছর থেকে কোথাও বিচার পাচ্ছি না, তাই এসব করেছি। তবে মাকে পিটিয়ে পা ভেঙ্গে ফেলার কথা এড়িয়ে যান তিনি।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে মাকে পিটিয়ে পা ভেঙ্গে ফেলার বিষয়ে জানতে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভিরুল ইসলামের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এ ঘটনায় পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Previous articleমহেশখালীতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ আলাউদ্দিন হত্যা মামলার প্রধান আসামীসহ গ্রেপ্তার ৩
Next articleসোনামসজিদ সীমান্তে ৫৯ বিজিবি’র অভিযানে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৩’শ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।