শফিকুল ইসলাম: চতুর্থ ধাপে জয়পুরহাটের সদর উপজেলার ৯ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৮৬ টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সকাল ৮টা থেকে বিরতীহিন টানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত এ ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। বেসরকারিভাবে ফলাফলে এই ৯ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৮টিতে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ও ১টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

বিজয়ীরা হলেন- ভাদসা ইউনিয়নে সরোয়ার হোসেন স্বাধীন(নৌকা), দোগাছি ইউনিয়নে সামসুল আলম সুমন (নৌকা), চকবরক ইউনিয়নে শাহজাহান আলী(নৌকা), মোহা¥দাবাদ ইউনিয়নে আতাউর রহমান (নৌকা), বম্বু ইউনিয়নে মোল্লা শামসুল আলম (নৌকা), আমদই ইউনিয়নে শাহানুর আলম সাবু (নৌকা) ও পুরানাপৈ ইউনিয়নে খোরশেদ আলম সৈকত (নৌকা) ও ধলাহার ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী তোজাম্মেল হোসেন। এছাড়া জামালপুর ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী হাসানুজ্জামান মিঠু নির্বাচিত হন। জয়পুরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রির্টানিং কর্মকর্তা আমিনুর রহমান মিঞা রোববার রাতে এ ফলাফলের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ নির্বাচনে ৯টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ৩২ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে বলে দাবী করেন নৌকা মার্কার প্রার্থীরা। তবে ভোটে কারচুপির অভিযোগ অধিকাংশ স্বতন্ত্র প্রার্থী। পুরানাপৈল ইউপিতে জাপা প্রার্থী নজরুল ইসলাম ও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেক ভোটার অভিযোগ করেন, নৌকা প্রার্থীসহ তার কর্মীরা বেশ কয়েকটি কেন্দ্র দখলে নিয়ে নিজেরাই ব্যালট নিয়ে নৌকা মার্কায় সীল মারেন। ভাদসা ইউপিতে ভোট কারচুপির অভিযোগে স্বতন্ত্র প্রার্থী হায়দার আলী ভোট বর্জন করেন।

Previous articleমুলাদীতে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ব্যবসায়ীর বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ
Next articleমুলাদীতে বিয়ে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ভ্যান চালককে হত্যাচেষ্টা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।