ফেরদৌস সিহানুক শান্ত: অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচী প্রকল্পের মাধ্যমে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রামীণ জনপদের সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ৪০ দিনের কর্মসূচীতে সাধারনত রাস্তা, ধ্বসে যাওয়া রাস্তার পাড় সংস্কার করা হয়। এতে দীর্ঘদিন থেকে চলাচল অনুপোযোগী হয়ে পড়া রাস্তাগুলো আবারো চলাচলের উপযোগী হয়ে উঠছে। সেই সাথে হতদরিদ্র কর্মহীন মানুষ এ কর্মসূচীতে ৪০ দিন কাজ করার সুযোগ পাচ্ছেন, এতে তারা আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন।

অতিদরিদ্রদের জন্য ৪০ দিনের কর্মসংস্থান কর্মসূচীর আওতায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের রাস্তাঘাট সংস্কার করা হচ্ছে। প্রত্যন্ত চর নারায়নপুর ইউনিয়নে গিয়ে দেখা যায়, বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডে রাস্তার সংস্কারের কাজ করছেন শ্রমিকরা। স্থানীয়রা জানান, মাটি তোলার কারনে কিছুটা হলেও রাস্তাঘাটে চলাচল করা যাবে। নারায়নপুর আদর্শ কলেজ থেকে জোহরপুর বিওপি পর্যন্ত রাস্তার সংস্কার কাজ করা হচ্ছে।

রাস্তাটি সংস্কার হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কলেজটির অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ বলেন, আগামী বর্ষা মৌসুমে শিক্ষার্থীদের কষ্ট হত, রাস্তায় মাটি তোলার কারনে চলাচলে তেমন কষ্ট হবে না।

নারায়নপুর দারুল হোদা আলিম মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা শিবলী জানান, রাস্তা সংস্কার হওয়ার কারনে সবার চলাচল সহজতর হবে, শ্রমিকরা সুন্দরভাবে কাজ করছেন। বর্ষার সময় কাদা থেকেও অনেকটা রেহাই পাওয়া যাবে। তবে এলাকা বাসির পক্ষে দাবি জানায় রাস্তাগুলো ইট দিয়ে তৈরী করা হয়। দীর্ঘদিন পর এ অবহেলিত ইউনিয়নের তিকে নজর দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এদিকে শ্রমিকরা কাজের সুযোগ পেয়ে অনেক খুশি।

মাটি তোলার কাজ করা মতিউর রহমান নামে এক শ্রমিক বলেন ৪০০ টাকা করে মুজুরি পাবেন তিনি, ৪০ দিন কাজ করলে ১৬ হাজার টাকা পাবেন। তিনি আগামীতেও যেন এ ইউনিয়নে আরো কাজ তাদের দেয়া হয় সে দাবি জানান। নারায়নপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নাজির হোসেন জানান, তার ইউনিয়নে বর্তমানে ৪০ দিনের কর্মসূচী চলমান রয়েছে।

গত ১৫ জানুয়ারী থেকে শুরু হওয়া এ কর্মসূচী শেষ হবে এ মাসেই। চলমান এ কর্মসূচীর মাধ্যমে ইউনিয়নের বেশকিছু রাস্তা সংস্কার করা হয়েছে। সেই সাথে হতদরিদ্রদের কাজের সুযোগ হয়েছে। আগামীতে এ অবহেলিত ইউনিয়নের উন্নয়নে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করছেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মৌদুদ আলম খাঁ বলেন, অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচীর আওতায় বিভিন্ন ইউনিয়নে গ্রামীন কাঁচা রাস্তা সংস্কার করা হচ্ছে। এতে করে গ্রামীণ দুর্ভোগ কমে আসবে। নারায়নপুর ইউনিয়নে ২৫৬ জন আর পুরো উপজেলাতে প্রতিটি ইউনিয়ন মিলিয়ে ৩৩৯১ জন শ্রমিক ৪০ দিন করে কাজের সুযোগ পেয়েছেন। বছরে দু’বার করে এ কর্মসূচীর আওতায় কাজ করা হচ্ছে। যদি কোন শ্রমিক দুবার কাজ করেন তাহলে তিনি বছরে ৩২ হাজার টাকা পাবেন, একবার কাজ করলে পাবেন ১৬ হাজার টাকা। চেষ্টা করছি গ্রামীন অবকাঠানোর উন্নয়নের সাথে সাথে হতদরিদ্রদের জন্য কাজের সুযোগ সৃষ্টি করতে।

Previous articleইউক্রেনে নিহত বাংলাদেশী নাবিকের লাশ জাহাজেই আছে
Next articleরংপুরে ব্রোকলী চাষে সফল চাষী নুরুন্নবী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।