সাহারুল হক সাচ্চু: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় রমজান উপলক্ষে নামকরা সলপ এর ঘোলের চাহিদা এখন আরো বেড়েছে ৷ জানা গেছে অন্য সময়ের চেয়ে রমজানে ঘোলের চাহিদা বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে ৷সলপ রেল ষ্টেশন এলাকায় ঘোলের দোকানগুলোয় এখন পাইকারি ও খুচরা জমজমাট কেনাবেচা হচ্ছে । উল্লাপাড়ার সলপ রেল ষ্টেশন এলাকায় বড় ছোটো বেশ কটি ঘোলের দোকান রয়েছে ৷ এখানে নিজেদের কারখানায় ঘোল তৈরী এবং তা পাইকারি ও খুচরা বিক্রি করা হয়ে থাকে ৷

সলপে এখন গোটা ছয়েক কারখানায় প্রতিদিন একশো মনের বেশি ঘোল তৈরী করা হয় বলে জানা গেছে ৷ এদের মধ্যে আব্দুল মালেক, আব্দুল খালেক, আব্দুর রাজ্জাকের কারখানায় সবচেয়ে বেশি ঘোল তৈরী হয়ে থাকে। উল্লাপাড়া ছাড়াও আশেপাশের শাহজাদপুর , বেলকুচি, কামারখন্দ, সদর সিরাজগঞ্জ থেকে প্রতিদিন দুই থেকে আড়াইশো জন সলপ রেল ষ্টেশন এলাকায় ঘোল কিনতে আসেন। অনেকে দোকানে বেচতে পাইকারি কিনে নিয়ে যান ৷

এবারে প্রতি কেজি ঘোল ষাট টাকা দরে কেনাবেচা হচ্ছে বলে জানানো হয় ৷ ব্রিটিশ আমলে গড়ে উঠা সলপের ঘোলের চাহিদা ও নামডাক দেশের বিভিন্ন এলাকায় আছে ৷ এদিকে উল্লাপাড়া শহরের বিভিন্ন দোকান ও খোলা জায়গায় রমজান উপলক্ষে সলপের ঘোল পরিচয়ে ঘোল বিক্রি করা হচ্ছে ৷ সোমবার বিকেলে সলপ থেকে সলপের ঘোল কিনে আনা দুজনের কথায় তাদের পরিবারের সবার কাছে সলপের ঘোল খুবই পছন্দের ৷ তাই কিনে আনলেন ৷

সলপের ঘোল ব্যবসায়ী আব্দুল মালেকের বক্তব্যে রমজান মাসে তাদের ঘোলের চাহিদা অনেক বেশি হয় ৷ এবারেও রমজানের প্রথম দিন থেকেই বেশী চাহিদা দেখা দিয়েছে ৷

Previous articleদেশে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৬১
Next articleঝিনাইদহে এক মণ পেঁয়াজ বা রসুনের দামে এক তরমুজ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।