আহম্মদ কবির: উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে টাঙ্গুয়ার হাওরের নজরখালী বাঁধ ভেঙ্গে হাওরে পানি প্রবেশ করার, হাওরের ভিতরের গইন্যাকুড়ি ও এরাইল্যাকুনা হাওরের বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার আতঙ্কে,হাওর পারের কৃষকেরা নিজেরা চাঁদা তুলে বাঁধ মেরামতের কাজ করছেন।

বৃহস্পতিবার (৫এপ্রিল)সরেজমিনে গইন্যাকুড়ি ও এরাইল্যাকুনা হাওরে গেলে দেখাযায় গইন্যাকুড়ি হাওরে বাঁধের কিনারে কিনারে পানি,সামান্য বাড়লেই বাঁধ উপচে হাওরে প্রবেশ করবে। ফসল রক্ষায় স্থানীয় কৃষকরা নিজেরা টাকা উত্তোলন করে,এক্সভেটর দিয়ে মাটি ভরাটের কাজ করছে। কেউ কেউ আবার উড়া-কোদাল নিয়ে বাঁধ মেরামতের কাজ করছেন।

তারা জানান আমরা দরিদ্রতার সাথে বসবাস করছি, আমাদের একটি মাত্র বোর ফসল টাঙ্গুয়ার হাওরের নজরখালী বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার ফসল হারানোর শঙ্কায় রয়েছি।আমাদের এই বাঁধটি ভেঙে গেলে আর দুটি হাওর ঝুকিপূর্ণ হয়ে যাবে তাই আমরা সরকারের সহযোগিতা কামনা করি।

এব্যাপারে হাওরে অবস্থানরত উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের মন্দিয়াতা গ্রামের কৃষক আব্দুল ওয়াহিদ বলেন আমরা খুব অসহায় দুইদিন ধরে এক্সভেটর দিয়ে বাঁধ মেরামতের কাজ করতেছি,আমরা নিজেদের মধ্যে হতে যে টাকা উত্তোলন করেছি সব শেষ, এখন আর সম্ভব নয় এক্সভেটরের বিল পরিশোধ করা।আমরা সরকারের সহযোগিতা কামনা করি না হয় আমাদের হাওর রক্ষা করা সম্ভব নয়।

এ ব্যাপারে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রায়হান কবির বলেন তারা নিজেদের উদ্যোগে কাজ করতেছে এ জন্য ধন্যবাদ জানাই,আমার পক্ষ হতে এ ব্যাপারে কথা বলতেছি যদি কিছু করা যায়।

Previous articleপরকীয়া প্রেমিকার সাথে অভিমানে যুবকের আত্মহত্যা
Next articleলেবাননকে দেউলিয়া ঘোষণা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।