আবুল কালাম আজাদ: টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে স্কুলছাত্রী বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ আভিযোগে ধর্ষকের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতেএলাকাবাসীর মানববন্ধন করেছে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতা বাদী হয়ে টাঙ্গাইল কোর্টে মামলা দায়ের করেছে।

বুধবার (৬ এপ্রিল) সকাল ১১টায় টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল উপজেলায় আলুপাকুটিয়া গ্রামে এলাকাবাসী একই গ্রামের ধর্ষক রাসেলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে এক মানববন্ধন করেন। মামলার বিবরণে জানা যায়, ৩১ মার্চ স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অতি গোপনে সিএনজি যোগে কাকড়াজান ইউনিয়নে ইন্দ্রাজানী বাজারের পাশে নাথুর চালা নামক জঙ্গলে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে রাসেল পালানোর চেষ্টা করে। অবশেষে জনতার হাতে ধরা পড়ে রাসেল। স্থানীয় জনতা কাকড়াজান ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য নাছির উদ্দীন মেজবাহ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা আব্দুল মান্নান দুইজন কে আলাদা রুমে আটকিয়ে রাখে এবং দুইজনের অভিভাবকে সংবাদ দেয়। সংবাদ পেয়ে ছেলের বাবা লাল মিয়া উপস্থিত হয়ে ২০ লাখ টাকার কাবিন দিয়ে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ঘটনাস্থল থেকে ছেলেকে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে বিয়ে না করে প্রভাবশালী ছেলে পক্ষ বিভিন্ন হুমকি প্রদান করে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতা শান্তনা আক্তার বাদী হয়ে টাঙ্গাইল কোর্টে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

আলুপাকুটিয়া গ্রামের আ: লতিফের ছেলে মো: নাজমুল হোসেন বলেন, ঘটনার সততা রয়েয়ছে। ধর্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। দিগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক হোসেন ফনি জানান, ধর্ষণের বিষয়টি জানা নাই এবং মানববন্ধন করেছেন কিনা তা জানি না। মেয়ের মা মর্জিনা বেগম জানান, রাসেলের ভয়ে আমার মেয়ে স্কুলে যাইতে পারত না। অবশেষে আমার মেয়ের ক্ষতি করলো। ওরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাই তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে পারে না।

Previous articleবিএনপি কখনো কল্যাণকর কর্মসূচি গ্রহণ করেনি: কাদের
Next articleঈশ্বরদীর রূপপুরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।