বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ঈদুল ফিতর উপলক্ষে কেনা জামা সাইজে ছোট হওয়ায় তা দোকানির কাছে এসে এক সাইজ বড় জামা চাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে যান দোকানি। এতে শুরু হয় উভয়পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটি। এক পর্যায়ে দোকানি ও তার সহযোগীরা ক্রেতা স্বামী ও স্ত্রীকে মারপিট করেন।

অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ওই মারপিটকারী দোকানি মো: সজিব খানকে (২৬) ইতোমধ্যে গ্রেফতার করেছে।

এ ঘটনায় রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা করেন ভুক্তভোগী গৃহবধূ রেবেকা আক্তার। তিনি ওই দোকানের ক্রেতা ও রাজবাড়ীতে বসবাসকারী সরকারি চাকুরিজীবী সুজন হোসাইনের স্ত্রী।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন– সজিবের বাবা আব্দুল গফুর, আদরসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৩-৪ জন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, ঈদুল ফিতর উপলক্ষে গত ১৮ এপ্রিল সুজন ও তার স্ত্রী রাজবাড়ী কাপড়বাজারে সজিব খানের দোকান থেকে মেয়ের জন্য দুটি জামা কেনেন। জামাগুলো সাইজে ছোট হওয়ায় গত বুধবার ২০ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে তারা সজিবের দোকানে আসেন এবং দোকানিকে এক সাইজ বড় মাপের জামা দিতে বলেন। এতে দোকানি সজিব ক্ষিপ্ত হন। সে সময় উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে দোকানি ও তার সহযোগীরা তাদের দু’জনকে বেধড়ক লাঠিপেটা করেন।

পরে টহলরত রাজবাড়ী থানা পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি দোকানি সজিবকে আটক করেন।

এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও রাজবাড়ী থানার এসআই মো: মাহবুবুল আলম জানান, গ্রেফতার আসামি সজিবকে বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Previous articleভালো কাজ করলে সুষ্ঠু নির্বাচনে ভয় কেন? : ড. আবদুল মঈন খান
Next articleপ্রতিবছরই করোনা টিকা দেয়ার প্রস্তুতি রয়েছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।