বাংলাদেশ প্রতিবেদক: নাটোরের নলডাঙ্গায় উপজেলার মাধনগরে ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আব্দুল আলিমের (৪৫) লাশ ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী রিমা খাতুনকে (৩০) রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে ইউপি সদস্য কিভাবে মারা গেছেন তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি পুলিশ।

গুরুত্বর জখম রিমা খাতুনকে প্রথমে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে ও পরে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মৃত আব্দুল আলিম উপজেলার মাধনগর গ্রামের মৃত আবু তাহেরের ছেলে এবং মাধনগর ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার রাত ৩টার দিকে উপজেলার মাধনগর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য আব্দুল আলিম খুন হয়েছেন- এমন খবরে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে। পুলিশ সেখান থেকে তার দ্বিতীয় স্ত্রী রিমা খাতুনকে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় উদ্ধার করে।

পরে তাকে পুলিশ অ্যাম্বুলেন্সে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায়। রাতে অবস্থার আরো অবনতি হলে রিমাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ঘটনার অধিক তদন্তের জন্য রাজশাহী থেকে গোয়েন্দা সংস্থার একটি দল ঘটনাস্থলে এসে তদন্ত শুরু করেছে।

স্থানীয় মাধনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার মৃধা জানান, মঙ্গলবার সকালে খবর পেয়ে তিনি আব্দুল আলিমের দ্বিতীয় স্ত্রীর বাড়িতে গিয়েছিলেন। তিনি সেখানে গিয়ে শুনেছেন ৬-৭ বছর আগে আব্দুল আলিম নাকি রিমা খাতুনকে বিয়ে করেছে। তবে আগে থেকে তার এমন তথ্য জানা নেই বলে তিনি জানান।

নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, আহত রিমা খাতুন পুলিশকে জানিয়েছে, তার স্বামী আব্দুল আলিমই তাকে ছুরি দিয়ে জখম করেছে। আব্দুল আলিম কিভাবে মারা গেছেন ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার আগে তা বলা সম্ভব নয়। তবে নিহত আব্দুল আলিম নিয়মিত নেশা করতো এবং জুয়া খেলতো- পুলিশ এটা নিশ্চিত হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

Previous articleমিথ্যাচার, কুরুচিপূর্ণ কথার আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা হলে চ্যাম্পিয়ন হবে আওয়ামী লীগ: রিজভী
Next articleঈদে সড়কের অবস্থা ভালো থাকায় কোথাও যানজট হয়নি: সেতুমন্ত্রী
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।