বাংলাদেশ প্রতিবেদক: ভোলার লালমোহনে মায়ের আত্মহত্যার ১০ মাস পর একই স্থানে মায়ের পরনের শাড়ি গলায় পেচিয়ে আত্মহত্যা করেছে মেয়ে। রুমা আক্তার (১৪) নামের ওই মেয়ের ঝুলন্ত লাশ হউদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৬ জুলাই) দুপুরে উপজেলার ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড মহেষখালী গ্রামে ছাত্রীর নিজ বসতঘর থেকে এ ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। রুমা ওই গ্রামের চাপরাশি বাড়ির মো: সিদ্দিকের মেয়ে ও স্থানীয় মহেষখালী ফজর আলী দাখিল মাদরাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

জানা গেছে, প্রায় ১০ মাস আগে নিজ ঘরের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছিলেন রুমার মা নাজমা বেগম। নিহত মায়ের পরনের শাড়ি গলায় পেঁচিয়ে একই স্থানে সিলিংফ্যানের সাথে ফাঁস দেয় রুমা।

রুমার বাবা সিদ্দিক জানান, রুমা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। সকালে পরিবারের সবাই একসাথে খাবার খায়। পরে রুমার সৎ মাকে নিয়ে বাজারে গিয়ে কাজ সেরে বাড়ি ফিরে দেখেন ঘরের দরজা-জানালা সব বন্ধ এবং বড় মেয়ে ঝুমা বারান্দায় ঘুমাচ্ছে। এ সময় ঝুমাকে ডাকলে বারান্দার দরজা খুলে দেয় সে। তবে মাঝ ঘরের দরজা বন্ধ থাকায় ভেবেছিলাম রুমা ঘরে ঘুমাচ্ছে। তাই তাকে না ডেকে কাজের উদ্দেশ্যে বেরিয়ে পড়ি। পরে স্থানীয়রা জানায় রুমা গলায় ফাঁস দিয়েছে।

রুমার সৎ মা রাবেয়া বেগম জানান, ভেবেছিলাম রুমা ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘুমাচ্ছে, তাই পার্শ্ববর্তী ঘরে সময় কাটাই। তবে অনেকক্ষণ হয়ে গেলেও রুমার কোনো সাড়া না পেয়ে বাইরে থেকে উঁকি দিয়ে রুমাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাই। এ সময় ডাক-চিৎকার করলে স্থানীয়রা এসে পুলিশকে সংবাদ দেয়। পরে পুলিশ এসে লাশটি নিচে নামায়।

লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মো: এনায়েত হোসেন বলেন, ঘটনাস্থল থেকে কিশোরীর লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

Previous articleসরকারি দলের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দাবিতে রংপুরে বিক্ষোভ সমাবেশ
Next articleকর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছে কর্মজীবি মানুষ
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।