লিটন মাহমুদ: মুন্সীগঞ্জের তালতলা-গৌড়গঞ্জ খালের উপর সিরাজদিখান ও টঙ্গীবাড়ী উপজেলার সংযোগ সড়কের কুন্ডের বাজারের ১২০ মিটার দীর্ঘ ব্রিজটি ভেঙে পড়ার আশংকা দেখা দিয়েছে।

ব্রিজটির নিজ দিয়ে নিয়মিত বালুবাহী বাল্কহেডের ঘর্ষণ ও ধাক্কায় খসে পড়ছে পিয়ারের পলেস্তার।
বাল্কহেডের ধাক্কা ও ঘর্ষণের ফলে পিয়ারের পলেস্তারা উঠে বেরিয়ে আসছে রড। এতে চরম ঝুঁকিতে পড়েছে সেতু দিয়ে চলাচলকারী যানবাহন এবং আশপাশের প্রায় অর্ধলক্ষাধিক জনসাধারণ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সেতুর নিচের স্বল্পস্থান দিয়ে একসঙ্গে দুইটি বাল্কহেড যাওয়ার সময় প্রায়ই আটকে গিয়ে পিলারে ধাক্কা খাচ্ছে। নিয়মিত পিলারে ঘর্ষণের ফলে ভেঙে পড়ার আশংকা দেখা দিয়েছে ব্রিজটি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, তালতলা-গৌড়গঞ্জ খাল দিয়ে প্রতিদিন বালু পরিবহনকারী কয়েক হাজার বাল্কহেড ব্রিজের নিচ দিয়ে যাতায়াত করে। পানিতে তীব্র স্রোত থাকায় যাতায়াতের সময় নিয়মিত ব্রিজের পিয়ারে ধাক্কা দেয়। এতে মাঝের দুইটা পিলারের উপরের আস্তর খসে পড়ায় রড বেরিয়ে গেছে।

এমনিতেই বহুদিন আগে ব্রিজটির উপরের পিয়ার ক্যাপ, গার্ডার ভেঙে গেছে। মরচে ধরা প্রায় প্রতিটি পাটাতন ও রেলিং। আর গাড়ি উঠলেই দুলতে থাকে সেতুটি। কয়েকবার করা হয়েছে মেরামত।
তাই উপর দিয়ে ভারী যানবাহন চলাচল নিষেধ। কিন্ত নিচ দিয়ে ঠিকই অবৈধ ছোট-বড় বালুবাহী ট্রলার বাল্কহেড যাতায়াত করছে।

বালুবাহী বাল্কহেডগুলো আকারে বড় হওয়ায় ও তীব্র স্রোত ও গতির জন্য সব সময় ধাক্কা মারছে বা ঘষা দিচ্ছে। এতে মাঝের পিয়ারসহ ব্রীজের বিভিন্ন অংশেও ঘষা লেগে পলেস্তার‍া খসে পড়ছে।

টঙ্গীবাড়ীর বাসিন্দা সিরাজ জানান, এই সেতুটি দিয়ে প্রতিদিন ঢাকায় যাতায়াত করি। সেতুটি ছাড়া আর আমাদের বিকল্প যোগাযোগ ব্যবস্থাও নেই। সেতুটি ইতিপূর্বে সংস্কার করা হলেও এখন প্রয়োজন নতুন আরেকটি প্রশস্ত সেতু নির্মাণের।

Previous articleভৈরবে বিদ্যুতের খুঁটি সরাতে গিয়ে ৩ জনের মৃত্যু, আহত ৩
Next articleকোম্পানীগঞ্জে বিয়ে দিতে চাওয়ায় কিশোরীর আত্মহত্যা
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।