মাসুদ রানা রাব্বানী: শীত আসতে এখনও প্রায় দুই মাস বাকি। তবে এরই মধ্যে রাজশাহীর কাঁচা বাজারে মিলছে নানান ধরনের শীতকালীন সবজি। বাজারে এসব সবজি মিললেও তা বিক্রি হচ্ছে বেশ চড়া দামেই। রাজশাহীর সাহেব বাজারের কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা যায়, ৪০ টাকা কেজির কম দরে বাজারে মিলছে না কোনো সবজি। আর উর্ধ্বমুখী দামের কারণে অসন্তোষ সাধারণ ক্রেতারা।

বিক্রেতারা বলছেন, বাজারে নতুন সবজি এলে শুরুর দিকে দাম একটু বেশি থাকে। এছাড়াও বিভিন্ন সবজির আমদানি কম থাকার কারণেও দাম একটু বেশি। তবে কিছুদিন পর এসকল সবজির দাম সাধারণ ক্রেতার নাগালেই থাকবে। নগরী সাহেব বাজার কাঁচা বাজারে সবজি কিনতে আসা মিজানুর রহমান বলেন, যেহেতু হালকা হালকা শীত পড়তে শুরু করেছে তাই এখন বাসায় সবার শীতের সবজি খেতে পছন্দ করবে। কিন্তু বাজারে এসে দেখছি শীতের সবজিগুলোর বেশ চড়া দাম। যা আমাদের মত মধ্যবিত্ত পরিবারের একদম নাগালের বাইরে।

সবজি বিক্রেতা জামাল উদ্দিন বলেন, শীতের সবজি এখন কিছু কিছু উঠেছে। ভালোভাবে শীত পড়তে শুরু করলে বাজারে শীতের সবজি সব উঠে যাবে। প্রতি বছরই শীতের শুরুর দিকে এই সময়টায় সবজির চড়া দাম থাকে। কিছুদিন গেলেই এই দামগুলো কমে যাবে। বাজার ঘুরে দেখা গেছে, কেজি প্রতি টমেটো ১৪০-১৬০ টাকা, ফুলকপি ৭০ টাকা, বাঁধাকপি ৫০ টাকা, গাজর ১৬০ টাকা, বরবটি ৫০- ৬০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৬০-৭০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এদিকে আলু ২৫ টাকা, শসা ৭০-৮০ টাকা, সিম ১০০-১২০ টাকা, মূলা ৪০ টাকা, বেগুন ৬০ টাকা, করলা ৬০ টাকা, ঢেঁড়স ৪০ টাকা, কাঁচা পেঁপে ৩০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, ঝিংগা ৬০ টাকা, কাঁকরোল ৬০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, লাউ প্রতি পিচ ৪০ টাকা দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। এছাড়াও বাজারে দেখা মিলছে লাল, হলুদ ও সবুজ রঙের ক্যাপসিকামের। যা বিক্রি হচ্ছে ২৫০-৩০০ টাকা কেজিতে।

Previous articleরাজশাহীতে চলতে পথে পথে চাঁদা দিতে হয় সিএনজি চালকদের
Next articleআওয়ামী লীগকে ভয় দেখিয়ে লাভ হবে না: ওবায়দুল কাদের
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।