রবিবার, জুলাই ২১, ২০২৪
Homeসারাবাংলাদৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার প্রকাশকের মৃত্যুতে কেশবপুরবাসীর গভীর শোক প্রকাশ

দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার প্রকাশকের মৃত্যুতে কেশবপুরবাসীর গভীর শোক প্রকাশ

জি.এম.মিন্টু: কেশবপুর উপজেলার কৃতি সন্তান, দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার প্রকাশক ও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের আইনজীবী, সৈয়দ মোহাইমেন বক্স কল্লোল (৫৮) ০২ফেব্রুয়ারি রাত তিনটা দশ মিনিটে হৃদ যন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ঢাকার বাসায় মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন )।

মৃৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৮বছর। তাঁর অকাল মৃত্যুতে কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ গভীর শোক প্রকাশ এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতি দেন, যশোর-৬-কেশবপুর উপজেলার সংসদ সদস্য ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিন চাকলাদার এমপি, কেশবপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান যোদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোঃ কাজী রফিকুল ইসলাম, সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ আব্দুল হালিম, কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা, কেশবপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়ল, কেশবপুর থানা বিএনপির আহবায়ক মোঃ মশিউর রহমান, কেশবপুর পৌর বিএনপ্#ি৩৯;র আহবায়ক সাবেক মেয়র আব্দুস সামাদ বিশ্বাস, যশোর জেলার সাবেক পিপি ও কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম পিটু, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি যশোর জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু বকর সিদ্দিক, কেশপুর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সভাপতি এডভোকেট আব্দুল মজিদ, অ্যাডভোকেট বদরুজ্জামান মিন্টুসহ উপজেলার সকল আইনজীবীগণ, কেশবপুর নিউজ ক্লাবের সভাপতি এএইচএম কামরুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুস্তম আলী, দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার কেশবপুর প্রতিনিধি এম এ রহমান, কেশবপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আশরাফ উজ জামান খান, সাধারণ সম্পাদক জয়দেব চক্রবর্তী, ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আনিসুর রহমান, সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত, আওয়ামী লীগ নেতা ওয়াহেদুজ্জামান মিন্টুসহ কেশবপুরের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।

উল্লেখ্য, মরহুম সৈয়দ মোহাইমেন বক্স কল্লোলের গ্রামের বাড়ি যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার ১নং ত্রিমোহিনী ইউনিয়নের মির্জানগর গ্রামের জমিদার বাড়িতে। তাঁর পিতা চাকুরী সূত্রে পাকিস্তানে বসবাস করতেন। ১৯৬৪ সালের পয়লা জানুয়ারি তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানের করাচি শহরে মোহাইমেন বক্স কল্লোল জন্মগ্রহণ করেন। চাকুরী সূত্রে তার পিতা সৈয়দ ময়েজ বক্স তৎকালীন পাকিস্তান সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার ছিলেন।

১৯৭০ সালে তিনি সপরিবারে বাংলাদেশে ফিরে আসেন এবং বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের ডেপুটি রেজিস্ট্রার হিসেবে যোগদান করেন। মরহুম সৈয়দ মোহাইমেন বক্স কল্লোল প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের লেখাপড়া পাকিস্তানে সম্পন্ন করেন। বাংলাদেশে ফিরে তিনি পুরাতন ঢাকার গ্রাজুয়েট স্কুল থেকে এসএসসি ও নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। পরে ঢাকা সেন্ট্রাল ল কলেজ থেকে সাফল্যের সাথে এলএলবি ও এলএলএম সম্পন্ন করেন। লেখাপড়া শেষে, জজকোর্ট ও পরবর্তীতে হাইকোর্টে প্র্যাকটিস শুরু করেন। ২০১৮ সাল থেকে মৃত্যু পর্যন্ত তিনি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের আইনজীবী ও দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার প্রকাশক হিসেবে হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী মাসুমা বক্স ও একমাত্র পুত্র সৈয়দ মুকিত বক্সসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। ০৩ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার কেশবপুর উপজেলার মির্জানগর গ্রামে জুম্মাবাদ জানাজা নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে বলে পরিবার জানিয়েছেন।

আজকের বাংলাদেশhttps://www.ajkerbangladesh.com.bd/
আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল নিউজ পেপার এখন দেশ-বিদেশের সর্বশেষ খবর নিয়ে প্রতিদিন অনলাইনে । ব্রেকিং নিউজ, জাতীয়, আন্তর্জাতিক রিপোর্টিং, রাজনীতি, বিনোদন, খেলাধুলা আরও অন্যান্য সংবাদ বিভাগ । আমাদের হাত বাধা নেই, আমাদের চোখ খোলা আমরা বলতে পারি ।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments